সর্বশেষ

  বিশ্বনাথে সিএনজি ও রিক্সা শ্রমিকদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় আহত ২০   প্রত্যাশার চেয়েও বেশি এগিয়েছে সদর উপজেলা স্পোর্টস একাডেমি: আশফাক আহমদ   মীরেরগাঁওয়ে বজ্রপাতে নিহত ৩ কিশোরের জানাজা সম্পন্ন : অনুদান প্রদান   মৌলভীবাজারে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে আটক ৩   সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুস সাত্তার আর নেই: এমপি মানিকের শোক   ছাতকে আওয়ামী লীগ নেত্রীর মাতৃ বিয়োগ : এমপিসহ বিভিন্ন মহলের শোক   বিশ্বনাথের খেলাফত মজলিসের ইফতার মাহফিল সম্পন্ন   বিশ্বনাথে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত ১   শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে আজ দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ :শফিক চৌধুরী   সুনামগঞ্জে বজ্রপাতে কৃষকের মৃত্যু   মাছ ধরতে গিয়ে বজ্রপাতে ৩ ভাইয়ের মৃত্যু   সিলেটে ছাত্রলীগ কর্মী মিন্নতের কব্জিকর্তন মামলার প্রধান আসামী শাহীনসহ গ্রেফতার ২   ছাতকে সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা দায়ের   কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ডি-লিট ডিগ্রি পেলেন শেখ হাসিনা   ছাতকে পৃথক সংঘর্ষে আহত ৫০, গ্রেফতার ১   জকিগঞ্জে ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার   এতিমদের নিয়ে ক্যাডেট কলেজ ক্লাব সিলেটের ইফতার মাহফিল   শাবিতে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ওয়েবসাইট উদ্বোধন   শাবির স্বপ্নোত্থানের ঈদবস্ত্র বিতরণ   সেই কলকাতাকে হারিয়ে ফাইনালে সাকিবদের হায়দরাবাদ

বাইক্কাবিলের পাখিপ্রেমী মিরাশ মিয়া আর নেই

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-১৭ ১২:৪৬:৫৭

উত্তরপূর্ব ডেস্ক : মঙ্গলবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৫ ॥ বাইক্কাবিলের পাখিপ্রেমী মিরাশ মিয়া আর নেই (ইন্না...রাজিউন)। ১৭ নভেম্বর (মঙ্গলবার) সকাল সাড়ে ১০টায় পাখিদের বন্ধু, রক্ষক মিরাশের দাফন হাজিপুর গ্রামের পৈত্রিক বাড়িতে সম্পন্ন হয়।

সোমবার (১৬ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৬টায় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৭ বছর। তা‍ঁর মৃত্যুর খবরে পাখি পর্যবেক্ষক, আলোকচিত্রী ও গবেষকদের মাঝে গভীর শোক নেমে আসে।

ক্লাইমেট-রেজিলিয়েন্ট ইকোসিস্টেমস্ অ্যান্ড লাইভলিহুডস্ (ক্রেল) প্রকল্পের বাইক্কাবিল সাইট অফিসার মো. মনিরুজ্জামান বলেন- হাওরের প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণে এবং ব্যবস্থাপনায় মিরাশ মিয়ার কর্মদক্ষতা অতুলনীয়। গ্রামের মানুষ হয়েও জীববৈচিত্র্য রক্ষণাবেক্ষণে তার ভূমিকা অনস্বীকার্য।
 
তিনি আরও বলেন- মিরাশ মিয়া পরিযায়ী পাখিদের ইংরেজি ও বাংলা নাম জানতেন। শুধু তা-ই নয়, চিনতেন কোনটা কোন পাখি। বাইক্কাবিলের পাখি পর্যবেক্ষণ টাওয়ারে টেলিস্কোপ দিয়ে আগত পর্যটকদের পাখির সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতেন তিনি।

বাইক্কা বিলে কোন পাখি কখন ‍আসে, কখন যায়, কোনে পাখিটি এবার নতুন এলো- এসব তথ্য সবার আগে মিলতো মিরাশ মিয়ার কাছে। কনকনে শীত উপেক্ষা করে পাখিরক্ষায় বিলের পর্যবেক্ষণ টাওয়ারেই রাতযাপন করতেন তিনি।
 
মৃত্যুকালে স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক মেয়ে ছাড়াও তিনি বহু গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি ছিলেন পরোপকারী, বিনয়ী ও প্রকৃতিপ্রেমী।

বড়গাঙ্গিনা সম্পদ ব্যবস্থাপনা সংগঠনের (আরএমও) প্রতিষ্ঠাতা সেক্রেটারি ছিলেন মিরাশ মিয়া। 

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/ডেস্ক/এসবি
 

সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত