সর্বশেষ

  ছাতকের চেলা নদী নৌকা বাইচ অনুষ্টিত   মিয়ানমারের রাখাইনে হিন্দু গণকবর : ২৮ মরদেহ উদ্ধারের দাবি সেনাবাহিনীর!   'শিক্ষার ভীত মজবুত করতে সরকার প্রাথমিক শিক্ষার উপর গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছে'   শাবিপ্রবিতে কারিকুলাম উন্নয়ন বিষয়ে সেমিনার   বিয়ের প্রলোভন দিয়ে অনাথ কিশোরী ধর্ষণ : ২০ হাজারে মিটমাটের চেষ্টা   রোহিঙ্গাদের নাগরিক অধিকারের দাবীতে ছাত্র মজলিস সিলেট মহানগরীর বিক্ষোভ   'শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের যৌথ প্রচেষ্ঠায় মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করা দরকার'   রিয়ালকে জয়ে ফেরালেন নবীন সেবায়োস   কমেছে চালের দাম, কমবে আরও   লন্ডনে আবারো এসিড হামলা, আহত ৬   তথ্য-প্রযুক্তিতে বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়ে গেছে : ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল   মহিউদ্দিন শীরু’র ৮ম মৃত্যুবার্ষিকী ২৫ সেপ্টেম্বর   ধর্ম যার যার, উৎসব সবার : কামরান   ওসমানীনগরে নিয়মিত বসে জুয়ার আসর, প্রশাসন নিরব   জগন্নাথপুরে বজ্রপাতে ২ জনের মৃত্যু   ফেঞ্চুগঞ্জে সড়ক মেরামতের দাবিতে আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা   মৌলভীবাজারে ‘শিক্ষা দিবস’ পালিত   হত্যা মামলার আসামী টিটু ও সুলেমান এখনও অধরা   ফেঞ্চুগঞ্জে পরিবহণ শ্রমিক নেতাদের সাথে প্রশাসনের সভা   রোহিঙ্গা নির্যাতনের প্রতিবাদে ওয়ার্কার্স পার্টির প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত

গাঁদাছড়া থেকে প্রতিদিন পাচার হচ্ছে ১০ লাখ টাকার বালু

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-১৬ ০১:৩৮:৫৩

মো. মামুন চৌধুরী, হবিগঞ্জ : সোমবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৫ ॥ হবিগঞ্জ জেলার সংরক্ষিত বনাঞ্চল ও চা-রাবার বাগানকে হুমকীতে ফেলে গাঁদাছড়া থেকে অপরিকল্পিভাবে প্রতিদিন ১০ লাখ টাকার বালু পাচার করছে সংঘবদ্ধচক্র। এতে করে শুধু সংরক্ষিত বনাঞ্চল নয় হুমকীতে পড়েছে চা ও রাবার বাগানকে । তার সাথে হুমকীতে পড়ছে দেউন্দি-শায়েস্তাগঞ্জ সড়কটিও। কারণ প্রতিদিন গাঁদাছড়া থেকে বড় ট্রাকে করে এ সড়ক দিয়ে বালুগুলো পাচার করা হচ্ছে। সড়কের সাথে হুমকীতে পড়েছে এ সড়কের ব্রিজগুলোও। রেহাই পাচ্ছে না দেউন্দি চা-বাগানের রাস্তাগুলো।
 
প্রতিদিন ৪০/৫০ ট্রাক সড়ক দিয়ে এসে শায়েস্তাগঞ্জে দেউন্দি সড়কে প্রবেশ করে দেউন্দি চা-বাগানের ভেতরের ইট সলিং রাস্তা করে প্রায় এককিলোমিটার অতিক্রম করে গাঁদাছড়া পৌঁছে বালু বোঝাই করে নিয়ে আসতে হচ্ছে। এসব বালু দেশের বিভিন্নস্থানে বিক্রি করে চক্রটি প্রতিদিন ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। তারা লাভবান হলেও প্রাকৃতিক পরিবেশ পড়েছে হুমকীর মুখে।

সংরক্ষিত রঘুনন্দন বনাঞ্চলের আওতাধীন হলেও গাঁদাছড়া থেকে কিভাবে কারা বালু উত্তোলন করছেন এনিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। যাইহোক এসব প্রশ্ন উপেক্ষা করে এ বালু উত্তোলনের ফলে শাহজিবাজাবার রাবার বাগান, রঘুনন্দন বনাঞ্চল, দেউন্দি, লালচান্দ চা-বাগানের টিলাগুলো ক্ষয় হচ্ছে।  রঘুনন্দন বনাঞ্চল কর্তৃপক্ষ কিছু না বললেও শাহজিবাজাবার রাবার বাগান, দেউন্দি, লালচান্দ চা-বাগান কর্তৃপক্ষ প্রভাবশালীদের সাথে কোন ভাবেই  পেরে উঠছেন না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দেউন্দি চা-বাগানের এক কর্মকর্তা বলেন- প্রতিযোগিতামূলকভাবে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করা হচ্ছে।  এতে করে চা ও রাবার বাগান এবং সংরক্ষিত বনাঞ্চল হুমকীর মখে পড়েছে। তার সাথে পরিবেশ হচ্ছে বিপন্ন।
এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক সাবিনা আলম বলেন, অবৈধভাবে বালু করা চলবে না। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সিলেট পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মো. ছালাহ্ উদ্দীন চৌধুরী বলেন, হবিগঞ্জের পরিবেশ রক্ষায় তারা সার্বক্ষণিক কাজ করছেন। আর এভাবে কাজ করায় পরিবেশ রক্ষা পাচ্ছে। তিনি বলেন, তারপরও আমাদের নজর সব সময় রয়েছে। নিয়মবর্হিভূতভাবে পরিবেশ বিপন্ন করা হলে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।

তিনি বলে, হবিগঞ্জে পরিবেশ অধিদপ্তরের কোন অফিস নেই। তাই এখানের কাজ তাদের করতে হচ্ছে। পরিশেষে তিনি বলেন, পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রাখতে সবাই একযোগে কাজ করলে আর কোন সমস্যা থাকবে না।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/এমএমসি/টিআই-আর

সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত