সর্বশেষ

  ছাতকে পুলিশের অভিযানে গাঁজাসহ আটক ১   শ্রীমঙ্গল বিজিবি’র বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি উদ্বোধন   মুক্তিযোদ্ধারা হচ্ছেন জাতির সূর্যসন্তান : শফিক চৌধুরী   বিয়ানীবাজার পৌর মেয়রের বাজেটে বড় চমক : সাড়ে ৪৬ কোটি টাকার বাজেটে উন্নয়ন ব্যয় ৯১ শতাংশের বেশি   দিরাইয়ে যুব নারীদের হস্তশিল্প প্রশিক্ষণ কোর্স সম্পন্ন   ডিএনএ রিপোর্টে সত্যতা মেলেনি : আতিয়া মহলে নিহতদের মধ্যে নেই জঙ্গি মুসা   বাহুবলে অবৈধ স্পিরিট বিক্রি করায় দুই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা   ছাতকে ১৬টি বিষধর সাপ আটক   সিলেট-ঢাকা মহাসড়কে হাইওয়ে পুলিশের অসহনীয় চাঁদাবাজী   যাকাতের অর্থ আয়বর্ধক কাজে ব্যয় করতে হবে: রাহাত আনোয়ার   বজ্রপাতের কারণে পার্বত্য চট্টগ্রামে পাহাড় ধস   কমলগঞ্জে সংসদ সদস্য’র ঐচ্ছিক তহবিলের টাকা বিতরণ   এপেক্সিয়ান চন্দন দাসের মায়ের মৃত্যুতে সাবেক মেয়র কামরানের শোক   মওদুদের জন্য খাট পাঠাতে চান নাসিম   মসজিদ আল হারামে শবে কদরের রাতে ২০ লাখের বেশি মানুষ মোনাজাতে শরীক   পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের শুভেচ্ছা   জ্যেষ্ঠ সাংসদদের পাশে পাচ্ছেন অর্থমন্ত্রী   গাজীপুরে ট্রাকের ধাক্কায় ১ জনের মৃত্যু   গ্রামীনফোন’র ঈদ আয়োজনে আয়নাবাজি : ৪টি চ্যানেল, ২০টি নাটক   বৃষ্টির দিনে যেমন পোশাক

গাঁদাছড়া থেকে প্রতিদিন পাচার হচ্ছে ১০ লাখ টাকার বালু

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-১৬ ০১:৩৮:৫৩

মো. মামুন চৌধুরী, হবিগঞ্জ : সোমবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৫ ॥ হবিগঞ্জ জেলার সংরক্ষিত বনাঞ্চল ও চা-রাবার বাগানকে হুমকীতে ফেলে গাঁদাছড়া থেকে অপরিকল্পিভাবে প্রতিদিন ১০ লাখ টাকার বালু পাচার করছে সংঘবদ্ধচক্র। এতে করে শুধু সংরক্ষিত বনাঞ্চল নয় হুমকীতে পড়েছে চা ও রাবার বাগানকে । তার সাথে হুমকীতে পড়ছে দেউন্দি-শায়েস্তাগঞ্জ সড়কটিও। কারণ প্রতিদিন গাঁদাছড়া থেকে বড় ট্রাকে করে এ সড়ক দিয়ে বালুগুলো পাচার করা হচ্ছে। সড়কের সাথে হুমকীতে পড়েছে এ সড়কের ব্রিজগুলোও। রেহাই পাচ্ছে না দেউন্দি চা-বাগানের রাস্তাগুলো।
 
প্রতিদিন ৪০/৫০ ট্রাক সড়ক দিয়ে এসে শায়েস্তাগঞ্জে দেউন্দি সড়কে প্রবেশ করে দেউন্দি চা-বাগানের ভেতরের ইট সলিং রাস্তা করে প্রায় এককিলোমিটার অতিক্রম করে গাঁদাছড়া পৌঁছে বালু বোঝাই করে নিয়ে আসতে হচ্ছে। এসব বালু দেশের বিভিন্নস্থানে বিক্রি করে চক্রটি প্রতিদিন ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। তারা লাভবান হলেও প্রাকৃতিক পরিবেশ পড়েছে হুমকীর মুখে।

সংরক্ষিত রঘুনন্দন বনাঞ্চলের আওতাধীন হলেও গাঁদাছড়া থেকে কিভাবে কারা বালু উত্তোলন করছেন এনিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। যাইহোক এসব প্রশ্ন উপেক্ষা করে এ বালু উত্তোলনের ফলে শাহজিবাজাবার রাবার বাগান, রঘুনন্দন বনাঞ্চল, দেউন্দি, লালচান্দ চা-বাগানের টিলাগুলো ক্ষয় হচ্ছে।  রঘুনন্দন বনাঞ্চল কর্তৃপক্ষ কিছু না বললেও শাহজিবাজাবার রাবার বাগান, দেউন্দি, লালচান্দ চা-বাগান কর্তৃপক্ষ প্রভাবশালীদের সাথে কোন ভাবেই  পেরে উঠছেন না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দেউন্দি চা-বাগানের এক কর্মকর্তা বলেন- প্রতিযোগিতামূলকভাবে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করা হচ্ছে।  এতে করে চা ও রাবার বাগান এবং সংরক্ষিত বনাঞ্চল হুমকীর মখে পড়েছে। তার সাথে পরিবেশ হচ্ছে বিপন্ন।
এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক সাবিনা আলম বলেন, অবৈধভাবে বালু করা চলবে না। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সিলেট পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মো. ছালাহ্ উদ্দীন চৌধুরী বলেন, হবিগঞ্জের পরিবেশ রক্ষায় তারা সার্বক্ষণিক কাজ করছেন। আর এভাবে কাজ করায় পরিবেশ রক্ষা পাচ্ছে। তিনি বলেন, তারপরও আমাদের নজর সব সময় রয়েছে। নিয়মবর্হিভূতভাবে পরিবেশ বিপন্ন করা হলে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।

তিনি বলে, হবিগঞ্জে পরিবেশ অধিদপ্তরের কোন অফিস নেই। তাই এখানের কাজ তাদের করতে হচ্ছে। পরিশেষে তিনি বলেন, পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রাখতে সবাই একযোগে কাজ করলে আর কোন সমস্যা থাকবে না।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/এমএমসি/টিআই-আর

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত