সর্বশেষ

  মৌলভীবাজারে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে আটক ৩   সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুস সাত্তার আর নেই: এমপি মানিকের শোক   ছাতকে আওয়ামী লীগ নেত্রীর মাতৃ বিয়োগ : এমপিসহ বিভিন্ন মহলের শোক   বিশ্বনাথের খেলাফত মজলিসের ইফতার মাহফিল সম্পন্ন   বিশ্বনাথে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত ১   শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে আজ দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ :শফিক চৌধুরী   সুনামগঞ্জে বজ্রপাতে কৃষকের মৃত্যু   মাছ ধরতে গিয়ে বজ্রপাতে ৩ ভাইয়ের মৃত্যু   সিলেটে ছাত্রলীগ কর্মী মিন্নতের কব্জিকর্তন মামলার প্রধান আসামী শাহীনসহ গ্রেফতার ২   ছাতকে সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা দায়ের   কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ডি-লিট ডিগ্রি পেলেন শেখ হাসিনা   ছাতকে পৃথক সংঘর্ষে আহত ৫০, গ্রেফতার ১   জকিগঞ্জে ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার   এতিমদের নিয়ে ক্যাডেট কলেজ ক্লাব সিলেটের ইফতার মাহফিল   শাবিতে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ওয়েবসাইট উদ্বোধন   শাবির স্বপ্নোত্থানের ঈদবস্ত্র বিতরণ   সেই কলকাতাকে হারিয়ে ফাইনালে সাকিবদের হায়দরাবাদ   ‘আদর্শ সমাজ গঠনে রমজানের শিক্ষাকে কাজে লাগাতে হবে’   সাচনা বাজারে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত দোকানপাঠ পরিদর্শনে রঞ্জিত সরকার   জামালগঞ্জে আগুনে পুড়ে ছাই ৯ দোকান: দেড় কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি

জামালগঞ্জে শ্রমিক সংকটে পানিতে ভাসছে কৃষকের স্বপ্ন!

প্রকাশিত : ২০১৮-০৫-১৫ ১৮:১১:১২

দিল আহমেদ, জামালগঞ্জ : মঙ্গলবার, ১৫ মে ২০১৮ ॥ জামালগঞ্জ উপজেলায় চলতি মৌসমে ইরি বোরো পুরোদমে ধান কাটা ও মাড়াই শুরু হয়েছে। তবে এর মধ্যে কয়েক দিনের টানা বর্ষণ ও কাল বৈশাখী ঝড়ের কবলে পুতে গেছে ইরি বোরো ধান। যে কারণে পানিতে ভাসছে কৃষকের সোনালী পাকা ধানের স্বপ্ন। পুতে যাওয়া ধান কাটার জন্য পাওয়া যাচ্ছে না শ্রমিক। আবার শ্রমিক পাওয়া গেলেও কৃষককে গুনতে হচ্ছে দ্বিগুণ মূল্য। এ বছর ধীর গতিতে পানি নিষ্কাশন হওয়ায় চারার বয়স বেশী হওয়ার কারণে বিঘা প্রতি ৪-৫-মণ হারে ধানের ফলন কম হবে বলে আশংকা করছেন এলাকার কৃষকরা ।
জানা গেছে, জামালগঞ্জ উপজেলায় পূর্বের বছর গুলোতে এই সময় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বিশেষ করে টাঙ্গাইল ফরিদপুর, কিশোরগঞ্জ, পাবনা, বরিশাল, দিনাজপুর, সহ ধান কাটার শ্রমিকরা এলাকা গুলোতে আসত। এখন তারা নিজেরাই স্বয়ং সম্পূর্ণ হওয়ায় এখানে আর আসে না। তাই প্রতি বছর ধান কাটার চরম শ্রমিক সংকটে পড়তে হচ্ছে।
কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়- চলতি বছরে উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নে ইরি বোরো ধান চাষের প্রায় ২৫ হাজার ১শত ৯০ হেক্টর জমিতে ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু এই মৌসমে ২৩ হাজার ৫শত ৭০হেক্টর জমিতে ইরি বোরো ধান রোপন করা হয়েছে।
উপজেলার নাজিম নগর গ্রামের সাইফুল ইসলাম জানান- এই মৌসমে ৬০বিঘা জমিতে ধান চাষ করেছি। কৃষি বিভাগের পরামর্শে জমিতে ধান ভাল হয়েছে। কিন্তু সমস্যা একটাই ধান কাটার শ্রমিক সংকট। যত দিন যাচ্ছে আর এই সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করেছে।
ইনাত নগর গ্রামের কৃষক ফখরুল ইসলাম বলেন- আমি ৪০বিঘা জমিতে ধান চাষ করেছি। কয়েক দিনের ঝড় বৃষ্টির কারণে ধানের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি মুখে পড়তে হয়েছে। অপরদিকে শ্রমিক সংকটের কারণে সঠিক সময়ে ধান কাটতে পারছি না। 

জামালগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কে,এম, বদরুল হক বলেন ইরি বোরো ধান লাগানোর শুরু থেকেই কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে কৃষকদের পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে। ভাল ফলনও হয়েছে কিন্তু কয়েক দিনের ঝড় বৃষ্টির কারণে পাকা ধানের কিছুটা ক্ষতি হবে। এখন আবহাওয়া ভাল বাজারে ধানের ভাল দাম থাকলে কৃষকরা লাভবান হবেন।
উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/ডিএ/এমওআর

সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত