সর্বশেষ

  খাদিমনগরের কালাগুলে সড়ক ও মাদ্রাসা ভবনের উদ্বোধন   সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের তপশীল ঘোষণা : নির্বাচন ১২ মে   সাংবাদিকতায় ‘ওয়াচডগ জার্নালিজম’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন তুহিন   ছাতক উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি অনুমোদন   ধান খাওয়াকে কেন্দ্র করে গোয়াইনঘাটে সংঘর্ষ : নিহত ১   “শেখ হাসিনার উন্নয়ন ব্যক্তি বিশেষের পকেট ভারীর জন্য নয়”   ফেঞ্চুগঞ্জে একই রাতে দুই বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি: ২০ লাখ টাকার মালামাল লুট   কবরস্থান রক্ষার দাবিতে যোগীরগাঁওয়ে মানববন্ধন : ১৫ দিনের আল্টিমেটাম   কানাইঘাটে ইফজালের বাড়ীতে শোকের মাতম : দাফন সম্পন্ন, গ্রেপ্তার ১   দিরাইয়ে মজনু মিয়া হত্যা : প্রধান আসামী ডনেল গ্রেফতার   তাহিরপুর উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি গঠন   বিশ্বনাথে পানির মধ্যে চলছে ‘বাসিয়া নদীতে’ পুনঃখনন কাজ   সদর উপজেলা স্পোর্টস একাডেমির অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত   ফেসবুকে গালিগালাজ: ফুলবাড়ী ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ   লন্ডনে আরিফ খান জয়ের ওপর বিএনপি নেতা-কর্মীদের হামলা   রাজনগরে ছেলের হাতে বাবা খুন: ছেলে আটক   বালাগঞ্জে ‘দেশরত্ন শেখ হাসিনা সেতু’র ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন দুই এমপি   কানাইঘাটে প্রবাসির বাড়ীতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি: গুলিতে নিহত ১   বরইকান্দিতে জোড়া খুনের মামলায় ৫২ জন জেলহাজতে   এশা ইস্যু : মুর্শেদাসহ ঢাবির ২৪ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

দণ্ডিত রাগীব আলীর বন্দনায় পিপি মিসবাহ!

প্রকাশিত : ২০১৭-১২-১৬ ০১:২৪:৩১

আপডেট : ২০১৭-১২-১৬ ১১:৫৬:৩৪

উত্তরপূর্ব প্রতিবেদন : শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭ ॥ জালিয়াতি করে দেবোত্তর সম্পত্তি আত্মসাতের মামলায় কারাদণ্ডপ্রাপ্ত সিলেটের আলোচিত ব্যবসায়ী রাগীব আলী কিছুদিন আগে জামিনে জেল থেকে বেরিয়েছেন। সাথে বেরিয়েছেন তার দণ্ডপ্রাপ্ত ছেলে আব্দুল হাইও। তাদের এই বেরিয়ে আসা নিয়ে চলছে নানা আলোচনা-গুঞ্জন।

তবে রাগীব আলী বেশ দ্রুতই ‘গা ঝাড়া’ দিয়ে উঠছেন। আর এই ওঠা দেখে অনেকে নানা কথা বলছেন। দীর্ঘদিন তার জবরদখলে থাকা দেবতার সম্পত্তি তারাপুর চা বাগানের বর্তমান মুক্তদশা এবং এর সেবায়েতের কর্তৃত্বের স্থায়িত্ব নিয়েও কেউ কেউ সংশয় প্রকাশ করছেন।

গত মঙ্গলবার স্ত্রী রাবেয়া খাতুনের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে স্বঘোষিত রাগীবনগরে ‘বড় বাজেটে, বিশাল আয়োজন’ করেন রাগীব আলী। আর সেই আয়োজনে ঢাকার এক সাংবাদিক, সিলেটের জনৈক কলামিস্ট, কুষ্টিয়ার ব্যবসায়ী, রাগীব আলীর মালিকানাধীন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ও মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ বক্তব্য দেন। তবে সব ছাপিয়ে ‘প্রধানবক্তা’র আসন অলংকৃত করেন সিলেট জজ কোর্টের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ।

আর এটা নিয়েই এখন সর্বত্র আলোচনা-সমালোচনা। সিলেটে রাষ্ট্রপক্ষের প্রধান আইন কর্মকর্তা হয়েও মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ দণ্ডপ্রাপ্ত রাগীব আলীর পারিবারিক অনুষ্ঠানে তার সাথে একই মঞ্চে বসে রাগীব দম্পতির পক্ষে গুণগাণমূলক যে বক্তৃতা দিয়েছেন তা শুনে-দেখে অনেকে মুচকি হাসছেন। কেউবা রাগীব আলীর টাকার জোরের কথা উল্লেখ করে মুখরোচক কথা বলছেন। অনুষ্ঠানে মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ রাগীব-রাবেয়া প্রসঙ্গে স্তুতিমূলক আরো অনেক কথার পাশাপাশি তাদেরকে মানবতার কল্যাণে নিবেদিতপ্রাণ বলে উল্লেখ করেন।

অথচ গত ফেব্রুয়ারি মাসে সিলেটের আদালতে যেদিন রাগীব আলী ও তার ছেলে আব্দুল হাই তারাপুর চা বাগানের জালিয়াতির মামলায় দণ্ডিত হয়েছিলেন সেদিন পিপি মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ আদালত প্রাঙ্গনে অপেক্ষমান সাংবাদিকদের বলেছিলেন, আজ এক ঐতিহাসিক দিন। রাগীব আলী ও তার ছেলে আব্দুল হাইয়ের মতো প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে আদালত রায় দিয়েছেন। এ রায়ের মধ্য দিয়ে প্রমাণ হয়েছে তারা মহাজালিয়াত।   
 
কিন্তু অল্পদিনের ব্যবধানেই ‘কী এক মায়াবি মোহে’ বোল পাল্টে গেল পিপি মিসবাহ উদ্দিন সিরাজের। নিজমুখেই মহাজালিয়াত আখ্যায়িত করা সেই রাগীব আলীর আতিথেয়তায় গদগদ হলেন তিনি। তবে দণ্ডপ্রাপ্ত ও মাত্র কিছুদিন আগে জামিনে মুক্ত হওয়া রাগীব আলীর পারিবারিক অনুষ্ঠানে মিসবাহ উদ্দিন সিরাজের এই যোগদানের বিষয়টিকে অনেকেই অনৈতিক ও অবৈধ বলছেন। পিপি হিসেবে তিনি রীতি ও নীতি ভঙ্গ করেছেন। 

সিলেটে রাগীব আলীর বিরুদ্ধে মামলা চলাকালে পিপি হিসেবে মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ আসামী রাগীব আলীর বিরুদ্ধেই ছিলেন। সাক্ষ্যপ্রমাণ, যুক্তিতর্ক শেষে আদালত রাগীব আলী ও তার ছেলে আব্দুল হাই প্রত্যেককে ১৪ বছর করে কারাদণ্ড দেন। রাগীব আলীর জালিয়াতির মামলায়  রাষ্ট্রপক্ষের প্রসিকিউশন কর্মকর্তা মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ আসামী রাগীব আলী ও আব্দুল হাইকে আদালতের কাছে অপরাধী প্রমাণে সমর্থ হয়েছিলেন। রায়ে দণ্ডবিধির ৪৬৬, ৪৬৮, ৪৭১ ও ৪২০ ধারায় পৃথকভাবে উভয়কে মোট ১৪ বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

এই রায়ের মাত্র ৯ মাস পর গত মঙ্গলবার রাবেয়া খাতুনের মৃত্যুবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তার বক্তব্যে পিপি মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ বলেন, রাগীব-রাবেয়া দম্পতি মানবকল্যাণে নিবেদিতপ্রাণ। বেগম রাবেয়া খাতুন চৌধুরী সমাজ ও দেশের উন্নয়নে নিবেদিত ছিলেন। তিনি স্বামী রাগীব আলীর পাশে থেকে তাকে অনুপ্রেরণা দিয়ে অসংখ্য কল্যাণমূলক কাজ করেছেন।

তাদের গড়া সেবামূলক প্রতিষ্ঠান শুধু সিলেটে নয়, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে। মিসবাহ সিরাজ বলেন, রাবেয়া খাতুন চৌধুরীর মৃত্যুবার্ষিকীতে তাকে শ্রদ্ধা জানাতে দেশের বিভিন্ন এলাকার মানুষ আজ রাগীবনগরে ছুটে এসেছেন। তিনি আগামীতে স্মরণসভাটি শহরে আয়োজনের আহবান জানিয়ে বলেন, তাহলে আরো গুণি-বিজ্ঞজনরা অংশ নিতে পারবেন। নতুন প্রজন্ম রাগীব-রাবেয়া সম্পর্কে আরো বেশি করে জানবে। রাগীব আলীর দীর্ঘায়ু কামনা করে মিসবাহ উদ্দিন তার বক্তৃতা শেষ করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামীদের আয়োজিত অনুষ্ঠানে পিপি মিসবাহ উদ্দিন সিরাজের অংশগ্রহণ প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার চৌধুরী মুর্শেদ কামাল টিপু উত্তরপূর্বকে বলেন, সরকারের জেলা প্রসিকিউশনের দায়িত্ব পালন করেন পিপি। তার দায়িত্ব হলো অপরাধীর সাজা নিশ্চিত করা। জ্ঞাত বা অজ্ঞাতসারে কোন অবস্থাতেই অপরাধীর সাথে তার এক মঞ্চে অবস্থান অনৈতিক। আইনগতভাবেও বিষয়টি অবৈধ। কোন অবস্থাতেই জেলা প্রসিকিউশন কর্মকর্তা সামাজিকতা অথবা রাজনীতির দোহাই দিয়ে চোরকে পীর বানাতে পারেন না।

এব্যাপারে সিলেটের সাবেক পিপি আব্দুল গাফ্ফার ও ই ইউ শহিদুল ইসলাম শাহীনের বক্তব্য জানতে চাইলে তারা উভয়েই এ বিষয়ে কিছু বলতে অপরাগতা প্রকাশ করে বলেন, ‘সামনে আইনজীবী সমিতির নির্বাচন, এ মুহূর্তে এ বিষয়ে মন্তব্য করা সমীচিন হবে না।’     

প্রসঙ্গত তারাপুর চা বাগানসহ বিপুল পরিমাণ দেবোত্তর সম্পত্তি আত্মসাতের লক্ষ্যে জালিয়াতির মাধ্যমে সরকারি আদেশ তৈরির অভিযোগে ২০০৫ সালের ২ নভেম্বর সিলেট কতোয়ালি থানায় রাগীব আলীর বিরুদ্ধে মামলা করেন তখনকার সহকারি কমিশনার (ভূমি)। এ মামলায় গত ২ ফেব্রুয়ারি সিলেটের মহানগর মুখ্য হাকিম- আসামি রাগীব আলী ও তার ছেলেকে ১৪ বছর করে কারাদণ্ড দেন।

এর আগে গত বছরের ২৩ নভেম্বর ভারতের করিমগঞ্জে ইমিগ্রেশন পুলিশের হাতে রাগীব আলী ও ১২ নভেম্বর ভারত থেকে জকিগঞ্জে এসে গ্রেপ্তার হন তার ছেলে আব্দুল হাই। রায়ের পর পিতা-পুত্র কারাগারে ছিলেন। এরপর উচ্চ আদালত থেকে জামিন পেয়ে গত ৩০ অক্টোবর কারাগার থেকে বের হন রাগীব আলী ও আব্দুল হাই।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/এফআই/টিআই-আর

সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত