সর্বশেষ

  প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন আল্লামা বরকতপুরী আর নেই   সিলেট বিভাগের প্রথম দুই শহীদের কবরে শ্রদ্ধাঞ্জলি   ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের শ্রদ্ধাঞ্জলি   সিলেট মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ   দিরাইয়ে যথাযোগ্য মর্যাদায় বিজয় দিবস উদযাপন   “দেশের উন্নয়নে আলেম-উলামাসহ সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যেতে হবে”   আফসর খান রাত্রিকালিন মিনি ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন   বিজয় দিবসে সিলেট মহানগর যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলি   বিজয়ানন্দে রঙিন সিলেট: শ্রদ্ধাভরে বীর শহীদদের স্মরণ   শাবিতে ৭ম ব্যাচের পুনর্মিলনী ২২ ডিসেম্বর   চৌধুরী মইনুদ্দিনকে দেশে ফিরিয়ে নিয়ে ফাঁসি কার্যকরের দাবি   সহকারি শিক্ষক সমিতির সংবাদ সম্মেলন: বেতন স্কেল নির্ধারণের দাবি   শায়েস্তাগঞ্জে দুই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের প্রার্থীদের প্রচারণা তুঙ্গে   বঙ্গবন্ধু কন্যা ভাতের বদলে আলু খাওয়াবেন না : এমপি মানিক   বিশ্বম্ভরপুরের রাজাপাড়া স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তপক অর্পণ   জকিগঞ্জে শিক্ষার্থীর অসুস্থ বাবার চিকিৎসার খবর নিলেন হুইপ সেলিম   এসপি হিসেবে পদোন্নতি পেলেন সিলেটের সুনন্দা রায়   বিশ্বনাথ থেকে ৪ অস্ত্র ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার   আজ মহান বিজয় দিবস   দণ্ডিত রাগীব আলীর বন্দনায় পিপি মিসবাহ!

ছাত্রীর শ্লীলতাহানী চেষ্টার অভিযোগে বিশ্বনাথে শিক্ষক বহিস্কার

প্রকাশিত : ২০১৭-১১-১৭ ১৪:৫০:২২

উত্তরপূর্ব ডেস্ক : শুক্রবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৭ ॥ বিশ্বনাথে ছাত্রীর শ্লীলতাহানীর চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। উপজেলার দশঘর ইউনিয়নের বাউশী কাশিমপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের পাশের একটি বাড়িতে এ ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানা গেছে। অভিযুক্ত শিক্ষকের নাম জাহিদুর রহমান। তিনি বাউশী কাশিমপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের গণিতের শিক্ষক। ঘটনার পর তাকে স্কুল থেকে বহিস্কার করেছে ম্যানেজিং কমিটি।

জানা যায়, দশম শ্রেণির অই ছাত্রী স্কুলের পাঠ শেষে অন্যান্য ছাত্রীদের সাথে অভিযুক্ত জাহিদের কাছে প্রাইভেট পড়তো। শুক্রবার প্রাইভেটের কথা বলে ফোনে ডেকে ছাত্রীকে স্কুলের পাশের ওই বাসায় নেয় সে। একা অবস্থায় কৌশলে ওই ছাত্রীকে ঘুমের ঔষধ খাইয়ে দেয় জাহিদ। এরপর শ্লীলতাহানীর চেষ্টা চালায়। কোনোরকমে তার হাত থেকে পালিয়ে গিয়ে ইজ্জত রক্ষা করে সেই ছাত্রী। পরবর্তিতে ঘটনাটি পরিবারের লোকজনের কাছে জান্য ওই ছাত্রী।

ছাত্রীর অভিভাবক জানান, সপ্তাহের অন্যান্য দিন প্রাইভেট পড়ালেও শুক্রবারে আমার মেয়েকে পড়াতো না জাহিদ। অসৎ উদ্দেশ্যেই সে ওইদিন প্রাইভেটের কথা বলে ফোনে ডেকে নিয়ে আমার মেয়ের ইজ্জত লুটের চেষ্টা করে।

অভিযুক্ত শিক্ষক জাহিদুর রহমান শুক্রবারে সেই ছাত্রীকে না পড়ানোর সত্যতা স্বীকার করে বলেন, 'গত শুক্রবারে আমি তাকে ফোন দিয়ে আসতে বলিনি। সে স্বেচ্ছায় আমার বাসায় আসে।'তার সাথে আরেকটা মেয়ে আসার কথা ছিল।'

'আপনি তাকে ফোন দেননি, তাহলে কিভাবে জানলেন সে আসবে এবং তার সাথে অন্য আরেকটি মেয়ে আসবে?' -এমন প্রশ্নের কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি অভিযুক্ত শিক্ষক জাহিদ।

স্কুল থেকে বের করে দেয়ার কারণ কি- জানতে চাইতে তিনি বলেন, ম্যানেজিং কমিটি আমাকে জানিয়েছেন স্কুলে আমার আর প্রয়োজন নেই। স্কুলের প্রধান শিক্ষক বিজন চন্দ্র সরকার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, জাহিদকে স্কুল থেকে বহিস্কার করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আবদুল মতিন মাস্টারের সাথে যোগাযোগ করা হলে অসুস্থতাজনিত কারণে তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সমীর কান্তি দেব গণমাধ্যমকে জানান, 'বিষয়টি আমার জানা নেই। এখন শুনলাম। আমি স্কুলে যাব এবং প্রধান শিক্ষকের সাথে এ ব্যাপারে কথা বলবো।'

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অমিতাভ পরাগ তালুকদার গণমাধ্যমকে জানান, 'এ ব্যাপারে খোঁজ নিয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।'  

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/ডেস্ক/এমএস

সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত