সর্বশেষ

  শেখ হাসিনার সিলেট সফর সফল করার লক্ষ্যে গোলাপগঞ্জে কর্মিসভা   দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক মিজানুর রহমান   বিয়ানীবাজারে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ৫   মাধবপুরে চেক ডিজঅনার মামলায় যুবলীগ নেতা গ্রেফতার   বিশ্বনাথে প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন করলেন ইউপি চেয়ারম্যান আমির আলী   বিশ্বনাথে ভ্রাম্যমাণ মোবাইল থেরাপি: ভ্যান দিয়ে প্রতিবন্ধীদের সেবা প্রদান   জৈন্তাপুরে ১৫ হাজার টাকার জাল নোটসহ যুবক অাটক   দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিক্ষক সঞ্জিতকে সম্মাননা প্রদান করা হবে   কুলাউড়ার স্বাধীনতা ক্রিকেট ক্লাবে ব্যাট প্রদান   শাবিতে ৬ষ্ঠ ‘মাহা-স্পোর্টস সাস্ট চ্যাম্পিয়ন্স লীগ শুরু   পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের পরিচালক হিসেবে পুনরায় মনোনীত হলেন আশফাক আহমদ   শাবি ১ম বর্ষের নবীনবরণ ৭ ফেব্রুয়ারি, উপস্থিত থাকবেন শিক্ষামন্ত্রী   সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা ২৫ জানুয়ারি   হিজড়া জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত   দেশের যুবসমাজ সু-সংগঠিত হলে রাষ্ট্র বিকশিত হয়: সিলেটে ওমর ফারুক চৌধুরী   কোম্পানীগঞ্জ প্রবাসী সমাজকল্যাণ পরিষদের শীতবস্ত্র বিতরণ   একটি চক্রের হাতে যেন জিম্মি ছাতকের ৩ গ্রামের মানুষ!   রাষ্ট্রপতি নির্বাচন ১৯ ফেব্রুয়ারি   কমলগঞ্জের ইসলামপুরে টিভি কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট সম্পন্ন   ‘মাতৃমৃত্যু রোধে মিডওয়াইফদের ভূমিকা অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ’

আল আমিনকে রাগিয়ে দিয়েছিলেন শহিদ!

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-২৫ ০০:২২:২২

ক্রীড়া ডেস্ক : বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০১৫ ॥ বরিশাল বুলসের ডানহাতি পেসার আল আমিন এবারের বিপিএলের প্রথম হ্যাটট্রিকের মালিক হয়ে গেছেন। সব মিলিয়ে এটি বিপিএলের দ্বিতীয় হ্যাটট্রিক। প্রথমটি করেছিলেন মোহাম্মদ সামি। মজার ব্যাপার হলো ড্রেসিংরুমে বসে সামিও দেখেছেন আল আমিনেরর কীর্তি! ১০৯ রানের লক্ষ্য ব্যাটিংয়ে নামা সিলেটের টপঅর্ডার গুড়িয়ে দিয়েছেন তিনিই। আল আমিনের এমন অগ্নিরূপের কারণ হতে পারেন সিলেটের মোহাম্মদ শহিদ। তিনিই তো রাগিয়ে দিয়েছিলেন আল আমিনকে!

ঘটনা বরিশালের ইনিংসের শেষ দিকে। দলের দশম ব্যাটসম্যান হিসেবে আল আমিনকে বোল্ড করেন শহিদ। আল আমিনের বিদায়ের মাধ্যমে ১০৮ রানে গুটিয়ে যায় বরিশাল।

সরাসরি বোল্ড হওয়ার কষ্টটা হয়তো নিয়ন্ত্রণ করতে পারেননি আল আমিন। বোলার শহিদের দিকে তেড়েফুড়ে ছুটে যান তিনি। শরীর দিয়ে ধাক্কাও দিয়ে বসেন। এ নিয়ে সৃষ্টি হয় উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়। পরে তা সামাল দিতে হস্তক্ষেপ করতে হয় দুই আম্পায়ারকে। এগিয়ে আসেন সিলেটের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমও। সবার প্রচেষ্টায় নিবৃত্ত হন আল আমিন। কিন্তু মনের ভিতরে রাগ ঠিকই পুষে রেখেছিলেন তিনি।

আল আমিনের রাগটা প্রকাশ পেলো সিলেট ব্যাটিংয়ে নামার পর। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে বোলিংয়ে এসেই মুমিনুল হককে বিদায় করেন তিনি। মুমিনুলকে আউট করেই রাগের আগুনটা জ্বালান আল আমিন। সেই আগুনে পুড়ে সিলেটের টপ অর্ডারকে ভষ্ম করেন তিনি পরের ওভারে।

ওই ওভারের প্রথম বলে তাকে চার মারেন রবি বোপারা। পরের বলটা কিছুটা ফুলটস ছিলো। তাতে ব্যাট বাড়িয়ে দিয়ে উইকেটকিপার ব্রেন্ডন টেলরের কাছে ক্যাচ দিয়ে বসেন বোপারা। পরের বলে আল আমিনের বিষাক্ত সুইংয়ের শিকার হন নুরুল হাসান সোহান। পরপর দুই উইকেট নিয়ে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা জাগিয়ে তুলেন আল আমিন।

কিন্তু তখনো কেউ আশা করতে পারেনি যে, হ্যাটট্রিক হতে পারে। কারণ স্ট্রাইকে যে মুশফিকুর রহিম- মিস্টার ডিপেন্ডেবল। কিন্তু অফস্ট্যাম্পের সামান্য বাইরে পরা বল সুইং করে ঢুকে যায় স্ট্যাম্পে। আক্ষরিক অর্থেই ভেঙে দেয় মুশফিকের মিডল স্ট্যাম! বেল মাটিতে পড়ার আগেই দেখা যায় মুশফিকের স্ট্যম্পের ভাঙা অংশ উড়ছে বাতাসে!

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/ডেস্ক/টিআই-আর

সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত