সর্বশেষ

  ফুলতলীতে পদদলিত হয়ে নিহত দু’জনের পরিচয় সনাক্ত: থানায় অপমৃত্যু মামলা   “২০১০ সালের শিক্ষানীতি পাশ কাটিয়ে যাওয়া হচ্ছে”   দেবপুর রাধাগোবিন্দ জিউ মন্দিরে ১৬ প্রহরব্যাপী হরিনাম সংকীর্ত্তণ ১৯ জানুয়ারি শুরু   শাবিতে প্রজেক্ট ফেয়ার ২৬ জানুয়ারি   শাবিতে ৩ দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলন সম্পন্ন   মোবাইল নিয়ে দেশের বাজারে টিসিএল   বিকাশে প্রতারক চক্র : ‘বস’ নাজমুল শোভনকে খুঁজছে র‌্যাব-৯   টাঙ্গাইল-৩’র এমপি রানাসহ ৪ ভাই আ’লীগ থেকে বহিষ্কারের সুপারিশ   দক্ষিণ সুরমায় র‌্যাবের অভিযানে ইয়াবাসহ আটক ১   জকিগঞ্জে কলেজছাত্রীর ওপর ‘হামলাকারীর’ ভাই আটক   এত প্রাপ্তির পরও হারলো বাংলাদেশ   মাঘের শীতে কাবু সিলেটের জনজীবন   নারায়ণগঞ্জে ৭ খুন : নূর হোসেনসহ ২৬ আসামির ফাঁসির রায়   নারায়ণগঞ্জের ৭ খুন মামলার রায় আজ   সিলেট সদর উপজেলা ছাত্রদল নেতা জুনায়েদের বিদেশ গমণ উপলক্ষে বিদায়ী সংবর্ধনা   নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিবের সাথে জেলা পরিষেদের সদস্য আলেয়ার সৌজন্য সাক্ষাৎ   প্রবাসী সাংবাদিকদের সাথে কাউন্সিলর শামীমের মতবিনিময়   ছাতকে বিল-হাওরে বোরো ধানের চারা রোপণের ধূম   কানাইঘাটে সালিশ বৈঠকে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে : আওয়ামী লীগ নেতাসহ ১০ আহত   দিনাজপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার মুক্তিযোদ্ধাদের ‘‘বীর নিবাস’’ হস্তান্তর

আল আমিনকে রাগিয়ে দিয়েছিলেন শহিদ!

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-২৫ ০০:২২:২২

ক্রীড়া ডেস্ক : বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০১৫ ॥ বরিশাল বুলসের ডানহাতি পেসার আল আমিন এবারের বিপিএলের প্রথম হ্যাটট্রিকের মালিক হয়ে গেছেন। সব মিলিয়ে এটি বিপিএলের দ্বিতীয় হ্যাটট্রিক। প্রথমটি করেছিলেন মোহাম্মদ সামি। মজার ব্যাপার হলো ড্রেসিংরুমে বসে সামিও দেখেছেন আল আমিনেরর কীর্তি! ১০৯ রানের লক্ষ্য ব্যাটিংয়ে নামা সিলেটের টপঅর্ডার গুড়িয়ে দিয়েছেন তিনিই। আল আমিনের এমন অগ্নিরূপের কারণ হতে পারেন সিলেটের মোহাম্মদ শহিদ। তিনিই তো রাগিয়ে দিয়েছিলেন আল আমিনকে!

ঘটনা বরিশালের ইনিংসের শেষ দিকে। দলের দশম ব্যাটসম্যান হিসেবে আল আমিনকে বোল্ড করেন শহিদ। আল আমিনের বিদায়ের মাধ্যমে ১০৮ রানে গুটিয়ে যায় বরিশাল।

সরাসরি বোল্ড হওয়ার কষ্টটা হয়তো নিয়ন্ত্রণ করতে পারেননি আল আমিন। বোলার শহিদের দিকে তেড়েফুড়ে ছুটে যান তিনি। শরীর দিয়ে ধাক্কাও দিয়ে বসেন। এ নিয়ে সৃষ্টি হয় উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়। পরে তা সামাল দিতে হস্তক্ষেপ করতে হয় দুই আম্পায়ারকে। এগিয়ে আসেন সিলেটের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমও। সবার প্রচেষ্টায় নিবৃত্ত হন আল আমিন। কিন্তু মনের ভিতরে রাগ ঠিকই পুষে রেখেছিলেন তিনি।

আল আমিনের রাগটা প্রকাশ পেলো সিলেট ব্যাটিংয়ে নামার পর। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে বোলিংয়ে এসেই মুমিনুল হককে বিদায় করেন তিনি। মুমিনুলকে আউট করেই রাগের আগুনটা জ্বালান আল আমিন। সেই আগুনে পুড়ে সিলেটের টপ অর্ডারকে ভষ্ম করেন তিনি পরের ওভারে।

ওই ওভারের প্রথম বলে তাকে চার মারেন রবি বোপারা। পরের বলটা কিছুটা ফুলটস ছিলো। তাতে ব্যাট বাড়িয়ে দিয়ে উইকেটকিপার ব্রেন্ডন টেলরের কাছে ক্যাচ দিয়ে বসেন বোপারা। পরের বলে আল আমিনের বিষাক্ত সুইংয়ের শিকার হন নুরুল হাসান সোহান। পরপর দুই উইকেট নিয়ে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা জাগিয়ে তুলেন আল আমিন।

কিন্তু তখনো কেউ আশা করতে পারেনি যে, হ্যাটট্রিক হতে পারে। কারণ স্ট্রাইকে যে মুশফিকুর রহিম- মিস্টার ডিপেন্ডেবল। কিন্তু অফস্ট্যাম্পের সামান্য বাইরে পরা বল সুইং করে ঢুকে যায় স্ট্যাম্পে। আক্ষরিক অর্থেই ভেঙে দেয় মুশফিকের মিডল স্ট্যাম! বেল মাটিতে পড়ার আগেই দেখা যায় মুশফিকের স্ট্যম্পের ভাঙা অংশ উড়ছে বাতাসে!

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/ডেস্ক/টিআই-আর

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত