সর্বশেষ

  যাদুকাটা নদীর তীরে পণতীর্থ বারুণী স্নান আজ   ধন্যবাদ ১৭ পদাতিক ডিভিশনকে : আতিয়া মহলের বাসিন্দারা উদ্ধার   সিলেটের জঙ্গি আস্তানায় অপারেশন ‘স্প্রিং রেইন’ চলছে   সিলেটে জঙ্গি আস্তানায় প্যারা-কমান্ডোর অভিযান শুরু   সিলেটে জঙ্গি আস্তানা : ঘটনাস্থলে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম   ওমর ফারুকের বিরুদ্ধে কুরুচিপূর্ণ বক্তব্যের প্রতিবাদে সদর উপজেলা যুবলীগের বিক্ষোভ   আজ জাতীয় গণহত্যা দিবস   আতিয়া মহলের বাসিন্দার প্রশ্ন : আমরা কি জিম্মি?   পুলিশ বক্সে ঢোকার চেষ্টা করেছিল আত্মঘাতী যুবক!   টুকের বাজারে ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল সম্পন্ন   কী আছে জঙ্গি আস্তানার আতিয়া মহলের জিম্মিদের ভাগ্যে?   ঢাকায় বিমানবন্দরের সামনে আত্মঘাতী হামলায় এক জঙ্গি নিহত   আতিয়া মহলে অভিযান এসেস করতে ঘটনাস্থলে প্যারা-কমান্ডো দল   আতিয়া মহলে জিম্মি আছেন দু’শতাধিক মানুষ   জঙ্গি আস্তানায় অভিযান: উৎকণ্ঠায় অপেক্ষা উৎসুক জনতার   অশ্রুসিক্ত নয়নে স্বামী মহসীন আলীর স্বাধীনতা পুরস্কার গ্রহণ করলেন স্ত্রী সায়রা মহসীন   জঙ্গি আস্তানায় অভিযানে সোয়াত, অ্যাম্বুলেন্স প্রবেশ   দক্ষিণ সুরমায় ‘জঙ্গি আস্তানা’ ঘিরে ফেলেছে সোয়াত: যে কোন সময় অভিযান   সিলেট পৌঁছেছে সোয়াত টিম : চলছে মূল অভিযানের প্রস্তুতি   কমলগঞ্জে গুরু নীলেশ্বর মুখার্জী স্মৃতি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট উদ্বোধন

আল আমিনকে রাগিয়ে দিয়েছিলেন শহিদ!

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-২৫ ০০:২২:২২

ক্রীড়া ডেস্ক : বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০১৫ ॥ বরিশাল বুলসের ডানহাতি পেসার আল আমিন এবারের বিপিএলের প্রথম হ্যাটট্রিকের মালিক হয়ে গেছেন। সব মিলিয়ে এটি বিপিএলের দ্বিতীয় হ্যাটট্রিক। প্রথমটি করেছিলেন মোহাম্মদ সামি। মজার ব্যাপার হলো ড্রেসিংরুমে বসে সামিও দেখেছেন আল আমিনেরর কীর্তি! ১০৯ রানের লক্ষ্য ব্যাটিংয়ে নামা সিলেটের টপঅর্ডার গুড়িয়ে দিয়েছেন তিনিই। আল আমিনের এমন অগ্নিরূপের কারণ হতে পারেন সিলেটের মোহাম্মদ শহিদ। তিনিই তো রাগিয়ে দিয়েছিলেন আল আমিনকে!

ঘটনা বরিশালের ইনিংসের শেষ দিকে। দলের দশম ব্যাটসম্যান হিসেবে আল আমিনকে বোল্ড করেন শহিদ। আল আমিনের বিদায়ের মাধ্যমে ১০৮ রানে গুটিয়ে যায় বরিশাল।

সরাসরি বোল্ড হওয়ার কষ্টটা হয়তো নিয়ন্ত্রণ করতে পারেননি আল আমিন। বোলার শহিদের দিকে তেড়েফুড়ে ছুটে যান তিনি। শরীর দিয়ে ধাক্কাও দিয়ে বসেন। এ নিয়ে সৃষ্টি হয় উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়। পরে তা সামাল দিতে হস্তক্ষেপ করতে হয় দুই আম্পায়ারকে। এগিয়ে আসেন সিলেটের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমও। সবার প্রচেষ্টায় নিবৃত্ত হন আল আমিন। কিন্তু মনের ভিতরে রাগ ঠিকই পুষে রেখেছিলেন তিনি।

আল আমিনের রাগটা প্রকাশ পেলো সিলেট ব্যাটিংয়ে নামার পর। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে বোলিংয়ে এসেই মুমিনুল হককে বিদায় করেন তিনি। মুমিনুলকে আউট করেই রাগের আগুনটা জ্বালান আল আমিন। সেই আগুনে পুড়ে সিলেটের টপ অর্ডারকে ভষ্ম করেন তিনি পরের ওভারে।

ওই ওভারের প্রথম বলে তাকে চার মারেন রবি বোপারা। পরের বলটা কিছুটা ফুলটস ছিলো। তাতে ব্যাট বাড়িয়ে দিয়ে উইকেটকিপার ব্রেন্ডন টেলরের কাছে ক্যাচ দিয়ে বসেন বোপারা। পরের বলে আল আমিনের বিষাক্ত সুইংয়ের শিকার হন নুরুল হাসান সোহান। পরপর দুই উইকেট নিয়ে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা জাগিয়ে তুলেন আল আমিন।

কিন্তু তখনো কেউ আশা করতে পারেনি যে, হ্যাটট্রিক হতে পারে। কারণ স্ট্রাইকে যে মুশফিকুর রহিম- মিস্টার ডিপেন্ডেবল। কিন্তু অফস্ট্যাম্পের সামান্য বাইরে পরা বল সুইং করে ঢুকে যায় স্ট্যাম্পে। আক্ষরিক অর্থেই ভেঙে দেয় মুশফিকের মিডল স্ট্যাম! বেল মাটিতে পড়ার আগেই দেখা যায় মুশফিকের স্ট্যম্পের ভাঙা অংশ উড়ছে বাতাসে!

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/ডেস্ক/টিআই-আর

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত