সর্বশেষ

  গ্রিক দেবীর ভাস্কর্য সরানোর কাজ চলছে   প্রধানমন্ত্রী ও প্রশাসনের কাছে জগন্নাথপুরে স্কুলছাত্র শুকুর হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবি   ‘যুদ্ধ বিধ্বস্ত পৃথিবীতে নজরুল সাম্যের কথা বলে গেছেন’   সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের নতুন সদস্যদের অভিষেক আজ   মাহে রমজান উপলক্ষে জগন্নাথপুরে প্রবাসীদের উদ্যোগে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ   জগন্নাথপুরে অস্ত্রসহ ৬ ডাকাত গ্রেফতার   বিয়ানীবাজারে সড়ক সংস্কারের দাবিতে গ্রামবাসীর অবরোধ   শাহী ঈদগাহ থেকে ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার   রামপুরে বাগান কর্তৃপক্ষের সাথে শ্রমিকদের বিরোধ নিষ্পত্তি করলেন উপজেলা চেয়ারম্যান   দক্ষিণ সুনামগঞ্জে বিভিন্ন সংস্থার উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ ও ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প   জৈন্তাপুর বিদ্যুৎ কেন্দ্রকে সিলেটে হস্তান্তর না করতে প্রতিমন্ত্রীকে স্মারকলিপি   নবীগঞ্জের ২নং ইউনিয়নে শেখ হাসিনা’র শতভাগ বিদ্যুৎ উপহার দিলেন কেয়া চৌধুরী   আজ ওসমানীনগরের বুরুঙ্গা গণহত্যা দিবস   শেখ হাসিনার নেতৃত্বে হবিগঞ্জের সর্বত্র ব্যাপক উন্নয়ন হচ্ছে : এমপি আবু জাহির   সুনামগঞ্জে হামের প্রাদুর্ভাব : আতঙ্কে অভিভাবকরা   অনিল কিষণ সিংহের ৮০তম জন্মজয়ন্তী উদযাপন শুক্রবার   হবিগঞ্জে ক্ষুদে নৃত্য শিল্পীর সংবর্ধনা   সাংবাদিক মামুন চৌধুরী’র পিতা ১১তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত   কৃষকদের ১০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণের দাবিতে মানববন্ধন   সনামগঞ্জ জেলা কৃষক লীগের আহবায়ক কমিটি গঠন

আল আমিনকে রাগিয়ে দিয়েছিলেন শহিদ!

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-২৫ ০০:২২:২২

ক্রীড়া ডেস্ক : বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০১৫ ॥ বরিশাল বুলসের ডানহাতি পেসার আল আমিন এবারের বিপিএলের প্রথম হ্যাটট্রিকের মালিক হয়ে গেছেন। সব মিলিয়ে এটি বিপিএলের দ্বিতীয় হ্যাটট্রিক। প্রথমটি করেছিলেন মোহাম্মদ সামি। মজার ব্যাপার হলো ড্রেসিংরুমে বসে সামিও দেখেছেন আল আমিনেরর কীর্তি! ১০৯ রানের লক্ষ্য ব্যাটিংয়ে নামা সিলেটের টপঅর্ডার গুড়িয়ে দিয়েছেন তিনিই। আল আমিনের এমন অগ্নিরূপের কারণ হতে পারেন সিলেটের মোহাম্মদ শহিদ। তিনিই তো রাগিয়ে দিয়েছিলেন আল আমিনকে!

ঘটনা বরিশালের ইনিংসের শেষ দিকে। দলের দশম ব্যাটসম্যান হিসেবে আল আমিনকে বোল্ড করেন শহিদ। আল আমিনের বিদায়ের মাধ্যমে ১০৮ রানে গুটিয়ে যায় বরিশাল।

সরাসরি বোল্ড হওয়ার কষ্টটা হয়তো নিয়ন্ত্রণ করতে পারেননি আল আমিন। বোলার শহিদের দিকে তেড়েফুড়ে ছুটে যান তিনি। শরীর দিয়ে ধাক্কাও দিয়ে বসেন। এ নিয়ে সৃষ্টি হয় উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়। পরে তা সামাল দিতে হস্তক্ষেপ করতে হয় দুই আম্পায়ারকে। এগিয়ে আসেন সিলেটের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমও। সবার প্রচেষ্টায় নিবৃত্ত হন আল আমিন। কিন্তু মনের ভিতরে রাগ ঠিকই পুষে রেখেছিলেন তিনি।

আল আমিনের রাগটা প্রকাশ পেলো সিলেট ব্যাটিংয়ে নামার পর। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে বোলিংয়ে এসেই মুমিনুল হককে বিদায় করেন তিনি। মুমিনুলকে আউট করেই রাগের আগুনটা জ্বালান আল আমিন। সেই আগুনে পুড়ে সিলেটের টপ অর্ডারকে ভষ্ম করেন তিনি পরের ওভারে।

ওই ওভারের প্রথম বলে তাকে চার মারেন রবি বোপারা। পরের বলটা কিছুটা ফুলটস ছিলো। তাতে ব্যাট বাড়িয়ে দিয়ে উইকেটকিপার ব্রেন্ডন টেলরের কাছে ক্যাচ দিয়ে বসেন বোপারা। পরের বলে আল আমিনের বিষাক্ত সুইংয়ের শিকার হন নুরুল হাসান সোহান। পরপর দুই উইকেট নিয়ে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা জাগিয়ে তুলেন আল আমিন।

কিন্তু তখনো কেউ আশা করতে পারেনি যে, হ্যাটট্রিক হতে পারে। কারণ স্ট্রাইকে যে মুশফিকুর রহিম- মিস্টার ডিপেন্ডেবল। কিন্তু অফস্ট্যাম্পের সামান্য বাইরে পরা বল সুইং করে ঢুকে যায় স্ট্যাম্পে। আক্ষরিক অর্থেই ভেঙে দেয় মুশফিকের মিডল স্ট্যাম! বেল মাটিতে পড়ার আগেই দেখা যায় মুশফিকের স্ট্যম্পের ভাঙা অংশ উড়ছে বাতাসে!

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/ডেস্ক/টিআই-আর

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত