সর্বশেষ

  বাংলাদেশ বনপ্রহরী কল্যাণ সমিতির নির্বাচনে সভাপতি আব্দুল হাই ও সম্পাদক আহমদ আলী   হাওরে ত্রাণ তৎপরতা জোরদারে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ   হাওরে মরেছে ৪১ কোটি টাকার ১২৭৬ টন মাছ   দিনাজপুরে দুই ‘জেএমবি সদস্য’ গ্রেপ্তার   এসআইইউ’তে ইংরেজি বিভাগের উদ্যোগে উইলিয়াম শেক্সপিয়ারের জন্মদিন উদযাপন   সিলেট জেলা কারাতে অ্যাসোসিয়েশনের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত   মৌলভীবাজারে ‘হাওর বাঁচাও কৃষক বাঁচাও সংগ্রাম পরিষদ’র মানববন্ধন ও সমাবেশ   বুধবার আবহাওয়ার উন্নতি হতে পারে   ৫শ’ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করলেন মেসি   জামালগঞ্জে বাঁধ ভেঙে তলিয়ে যাচ্ছে পাকনার হাওরের বোরো ধান   বিয়ানীবাজার পৌরসভা নির্বাচন কাল : লড়াই হবে ত্রিমুখি   হবিগঞ্জে খোয়াই নদীর পানি বিপদসীমার ১০০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত   হবিগঞ্জে গণপিটুনিতে ডাকাত নিহত   ছাতকে হেলেন রানী চৌধুরী ছাত্রী ট্রাস্টের বৃত্তি প্রদান   ছাতকের ঝিগলী স্কুল অ্যান্ড কলেজে ৩ প্রবাসীকে সংবর্ধনা   শিবির সন্দেহে ৩ জনকে পুলিশে দিলো ছাত্রলীগ   জগন্নাথপুরে বিদ্যুতের ভেলকিবাজির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ   কমলগঞ্জে জঙ্গিবাদ ও মাদকবিরোধী বাইসাইকেল র‌্যালি ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত   মুফিজুর রহমান বাদশার শয্যাপাশে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ   বিশ্বনাথ প্রেসক্লাবের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন মঙ্গলবার

লাশের সঙ্গে দেয়া হবে জীবন্ত সাপ!

প্রকাশিত : ২০১৫-০৫-১৮ ১৫:৩৬:১৬

উত্তরপূর্ব ডেস্ক : ॥ সাপ ধরতে পারলে খুব আনন্দ পেতেন কৃষক আব্দুল হালিম। মাঝে মধ্যে তিনি সাপ ধরে খেলা করতেন। কে জানে সেই সাপই তার কাল হয়ে দাঁড়াবে। অবশেষে এই সাপের কামড়েই চলে যেতে হয়েছে পৃথিবী ছেড়ে। তবে তিনি একাই পৃথিবী ছেড়ে যাচ্ছেন না, সঙ্গে যাচ্ছে তাকে কামড় দেয়া জীবন্ত সাপও। সাপটিকে তার সঙ্গে দেয়ার ব্যবস্থা তার পরিবারের পক্ষ থেকেই করা হয়েছে।

রোববার কৃষি জমিতে কাজ করছিলেন রাজধানীর দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের সুভাঢ্যা ইউনিয়নের চুনকুঠিয়া গ্রামের কৃষক আব্দুল হালিম (৪৫)। কাজ করার সময় হঠাৎ করে একটি বিষধর সাপ তাকে কামড় দেয়। সঙ্গে সঙ্গে তিনি বিষধর সাপটিকে ধরেও ফেলেন। এরপর তিনি প্লাস্টিকের ব্যাগে সাপটি রেখে দেন। তার অবস্থা অবনতি হতে থাকলে স্বজনরা তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

সোমবার সকাল ৭টায় তিনি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। মারা যাওয়ার পর তার লাশটি ঢামেক হাসপাতাল মর্গে নিয়ে রাখা হয়েছে। কিন্তু পরিবারের লোকজন সেই সাপটিকে তার লাশের ট্রলিতে করে মর্গে রেখে দিয়েছেন।

মর্গের লোকজন জানতে চায় এই ব্যাগে কি? তখন পরিবারের লোকজন জানায়, যে সাপটির কামড়ে তিনি মারা গেছেন সেই সাপটি ব্যাগে রাখা আছে। তার সঙ্গে সাপটিকেও দিয়ে দেয়া হবে। এ নিয়ে মর্গে হৈ চৈ শুরু হয়ে যায়। কারণ এমনিতেই এ বিষধর সাপ একজনকে কামড়িয়েছে। সে জন্য অনেককেই ভয়ে দৌড়াতে দেখা গেছে। কেউ কেউ প্যাকেটটি খুলতে চাইলেও সাপের মড়মড়ানির শব্দে কেউ আর সাহস পাননি। এ প্রতিবেদন লেখার সময় সাপটি লাশের সঙ্গে ট্রলিতেই রাখা ছিল।

এদিকে ঘটনা ছড়িয়ে পড়লে উৎসুক জনতা সাপটিকে দেখার জন্য মর্গ এলাকায় ভীড় জমায়। তবে মর্গের অনেকেই বিষয়টি নিয়ে রীতিমতো আতঙ্কিত।

স্বজনরা জানিয়েছেন, এই সাপটি কৃষক আব্দুল হালিমের লাশের সঙ্গে কবরে দিয়ে দেয়া হবে। সেটা জীবন্ত হোক আর মর্গ থেকে ময়না তদন্ত করার পর হোক।

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত