সর্বশেষ

  ঢাবির রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট নির্বাচন: আ.লীগপন্থী ২৪, বিএনপিপন্থীরা ১টিতে জয়ী   প্রধানমন্ত্রীর সিলেট আগমন উপলক্ষ্যে মহানগর শ্রমিকলীগের সভা   অর্থমন্ত্রীর জীবনী ডকুমেন্টারিতে সুযোগ পেল মুক্তাক্ষরের শিক্ষার্থীরা   জাগো সিলেট আন্দোলনের আলোচনা সভা   দক্ষিণ সুনামগঞ্জে দি হাঙ্গার প্রজেক্টেরে আলোচনা সভা   দক্ষিণ সুরমায় ২য় দিনের মত সিএইচসিপিদের কর্মবিরতি পালন   আম্বরখানার মণিপুরি পাড়া মাতালেন নকুল কুমার   চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠের যৌথ চ্যাম্পিয়ন সুনামগঞ্জের হাওর কন্যা ঐশি   নগরীর সোবহানীঘাটে আবাসিক হোটেল থেকে তরুণ-তরুণীর লাশ উদ্ধার   এতিমদের সাথে রোটারী মিডটাউনের মধ্যাহ্নভোজ   রোটারী ক্লাব অব বিয়ানীবাজারের শীতবস্ত্র বিতরণ   স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র গ্রহণ করলেন অর্থমন্ত্রী   জামালগঞ্জে কমিউনিটি ক্লিনিকের কর্মরতদের অবস্থান কর্মসূচি   বিয়ানীবাজারে অগ্নিকাণ্ডে আড়াই লাখ টাকার ক্ষতি   ছুটির দিনে রান্নাঘরে প্রধানমন্ত্রী   রাজনগরে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় বৃদ্ধ নিহত   সিলেটে ‘আত্মা’র আঞ্চলিক সভা অনুষ্ঠিত   চলে গেল প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে পুরষ্কার গ্রহণকারী বর্ণা : জকিগঞ্জে শোকের ছায়া   এলাকার উন্নয়নে স্থানীয়দের নির্বাচিত করুণ, মাগুড়ার কাউকে নয় : এহিয়া চৌধুরী   সালমান শাহ’র হত্যাকারীদের বিচারে দাবিতে সিলেটে মানববন্ধন

সাকার প্রাণভিক্ষা : দল ও স্ত্রীর ভিন্নমত

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-২১ ১৪:২৪:৪৫

উত্তরপূর্ব ডেস্ক : শনিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৫ ॥ প্রাণভিক্ষা চাইবেন না সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী। বিএনপি’র পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে এ কথা জানানো হয়েছে। দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় এই সংবাদ সম্মেলন করেন।

তবে সেখানে উপস্থিত ছিলেন- সাকা চৌধুরীর স্ত্রী ফারহাত কাদের চৌধুরী। তিনি জানালেন, প্রাণভিক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার সুযোগ ও এখতিয়ার সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর নিজেরই।

সংবাদ সম্মেলনে গয়েশ্বর চন্দ্র বলেন, আমরা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর পরিবারের কাছ থেকে জেনেছি, তারা যখন কারাগারে দেখা করতে যান তখন সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী জানিয়েছেন তিনি প্রাণভিক্ষা চাইবেন না।

এর পরপরই ফারহাত কাদের চৌধুরী মাইক্রোফোন নিয়ে জানান, বিষয়টি এমন নয়, সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী প্রাণভিক্ষা চাইবেন কি না সে সিদ্ধান্ত তিনি নিজেই নেবেন।

এসময় ‘জাতীয় সংসদে দীর্ঘদিনের সহকর্মী হিসেবে বিষয়টি রাষ্ট্রপতি সুবিবেচনা করবেন,’ বলে আশা প্রকাশ করেন ফারহাত কাদের চৌধুরী।

উল্লেখ্য, কারাবিধি অনুযায়ি আইনি প্রক্রিয়া শেষ হয়ে যাওয়ার পর ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি কেবল পরিবারের সঙ্গেই দেখা করতে পারে। এবং রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদনের বাইরে ব্যক্তিগত চিঠি পাঠাতে পারে না। ফাঁসির আসামি প্রাণভিক্ষা না চাইলে যে কোন সময়ে ফাঁসি কার্যকর হতে পারে।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/বিএন/ওয়াইএম/এসবি

সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত