সর্বশেষ

  ছাতকে পৃথক সংঘর্ষে আহত ৫০, গ্রেফতার ১   জকিগঞ্জে ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার   এতিমদের নিয়ে ক্যাডেট কলেজ ক্লাব সিলেটের ইফতার মাহফিল   শাবিতে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ওয়েবসাইট উদ্বোধন   শাবির স্বপ্নোত্থানের ঈদবস্ত্র বিতরণ   সেই কলকাতাকে হারিয়ে ফাইনালে সাকিবদের হায়দরাবাদ   ‘আদর্শ সমাজ গঠনে রমজানের শিক্ষাকে কাজে লাগাতে হবে’   সাচনা বাজারে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত দোকানপাঠ পরিদর্শনে রঞ্জিত সরকার   জামালগঞ্জে আগুনে পুড়ে ছাই ৯ দোকান: দেড় কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি   লা-মাযহাবীদের প্রতিহত না করলে সিলেটের ধর্মপ্রাণ জনতা কঠিন সিদ্ধান্ত নেবে: হুছামুদ্দীন চৌধুরী   মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অভিযান: ইয়াবা ট্যাবলেট ও অটোরিকশাসহ আটক ১   কানাইঘাটে লেগুনার ধাক্কায় নিহত ট্রাক চালকের দাফন সম্পন্ন   মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটিতে আত্মপ্রকাশ করলো ‘হাত বাড়াও’   ছাতকে সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার   মাদক ব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগে ছাতকে ভাই-বোনসহ আটক ৩   ছাতকে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১৫   বিশ্বভারতীতে শেখ হাসিনার জন্য প্রস্তুত উপহারের ডালি   সুধীজনদের মিলনমেলায় সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের ইফতার মাহফিল সম্পন্ন   শাবিতে কর্মচারীকে বেধড়ক পিটুনী   বাহুবলে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে কৃষকের মৃত্যু

সাকার প্রাণভিক্ষা : দল ও স্ত্রীর ভিন্নমত

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-২১ ১৪:২৪:৪৫

উত্তরপূর্ব ডেস্ক : শনিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৫ ॥ প্রাণভিক্ষা চাইবেন না সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী। বিএনপি’র পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে এ কথা জানানো হয়েছে। দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় এই সংবাদ সম্মেলন করেন।

তবে সেখানে উপস্থিত ছিলেন- সাকা চৌধুরীর স্ত্রী ফারহাত কাদের চৌধুরী। তিনি জানালেন, প্রাণভিক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার সুযোগ ও এখতিয়ার সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর নিজেরই।

সংবাদ সম্মেলনে গয়েশ্বর চন্দ্র বলেন, আমরা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর পরিবারের কাছ থেকে জেনেছি, তারা যখন কারাগারে দেখা করতে যান তখন সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী জানিয়েছেন তিনি প্রাণভিক্ষা চাইবেন না।

এর পরপরই ফারহাত কাদের চৌধুরী মাইক্রোফোন নিয়ে জানান, বিষয়টি এমন নয়, সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী প্রাণভিক্ষা চাইবেন কি না সে সিদ্ধান্ত তিনি নিজেই নেবেন।

এসময় ‘জাতীয় সংসদে দীর্ঘদিনের সহকর্মী হিসেবে বিষয়টি রাষ্ট্রপতি সুবিবেচনা করবেন,’ বলে আশা প্রকাশ করেন ফারহাত কাদের চৌধুরী।

উল্লেখ্য, কারাবিধি অনুযায়ি আইনি প্রক্রিয়া শেষ হয়ে যাওয়ার পর ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি কেবল পরিবারের সঙ্গেই দেখা করতে পারে। এবং রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদনের বাইরে ব্যক্তিগত চিঠি পাঠাতে পারে না। ফাঁসির আসামি প্রাণভিক্ষা না চাইলে যে কোন সময়ে ফাঁসি কার্যকর হতে পারে।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/বিএন/ওয়াইএম/এসবি

সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত