সর্বশেষ

  কবি শান্ত খুমন আর নেই   কর্মসংস্থান ব্যাংক অফিসার্স এসোসিয়েশন কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মনোজ রায়কে সংবর্ধনা প্রদান   ৫ পদে ৮ জন লোক নেবে সিলেট মহানগর পুলিশ   নবীগঞ্জে পল্লীবিদ্যুতের ‘ভুতুড়ে’ বিলের চাপে গ্রাহক, এলাকায় অসন্তোস   বীরপ্রতীক কাকন বিবির শয্যাপাশে মহানগর যুবলীগের নেতৃবৃন্দ   হবিগঞ্জে চার শিশু হত্যা মামলা: ৩ আসামির ফাঁসির রায়   বিয়ের আগে রাজনীতি বুঝতাম না: রিজিয়া নদভী   কলেজছাত্রীকে পেটানো সেই ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কার   ওসমানীনগরের বেগমপুর শরৎ সুন্দরী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষক আব্দুল লতিফ আর নেই   মোবাইল কোর্ট নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের হাতে রাখার দাবি ডিসিদের   এবারের এইচএসসির ফলাফলে গোয়াইনঘাটের তোয়াকুল কলেজ শীর্ষে   বিয়ানীবাজারে জনতার হাতে প্রতারক আটক   রায় শোনার অপেক্ষায় সুন্দ্রাটিকি গ্রামের নিহত ৪ শিশুর পরিবার   সিলেটের আইকন খেলোয়াড় সাব্বির   ফেসবুকে ‘বিশ্বনাথীকে’ নিয়ে শিক্ষকের কটুক্তি : উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবর অভিযোগ   জগন্নাথপুরে খুন ও ডাকাতির মামলার আসামি গ্রেফতার   কুলাউড়ার বন্যাকবলিত এলাকায় ঝুঁকিপূর্ণ বিদ্যুৎলাইন : দুর্ঘটনার আশঙ্কা   ধর্মপাশায় বিএনপির সদস্য সংগ্রহ উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা   বিয়ানীবাজারে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম শুরু   ওসমানী মেডিকেল কলেজে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন

সাকার প্রাণভিক্ষা : দল ও স্ত্রীর ভিন্নমত

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-২১ ১৪:২৪:৪৫

উত্তরপূর্ব ডেস্ক : শনিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৫ ॥ প্রাণভিক্ষা চাইবেন না সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী। বিএনপি’র পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে এ কথা জানানো হয়েছে। দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় এই সংবাদ সম্মেলন করেন।

তবে সেখানে উপস্থিত ছিলেন- সাকা চৌধুরীর স্ত্রী ফারহাত কাদের চৌধুরী। তিনি জানালেন, প্রাণভিক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার সুযোগ ও এখতিয়ার সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর নিজেরই।

সংবাদ সম্মেলনে গয়েশ্বর চন্দ্র বলেন, আমরা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর পরিবারের কাছ থেকে জেনেছি, তারা যখন কারাগারে দেখা করতে যান তখন সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী জানিয়েছেন তিনি প্রাণভিক্ষা চাইবেন না।

এর পরপরই ফারহাত কাদের চৌধুরী মাইক্রোফোন নিয়ে জানান, বিষয়টি এমন নয়, সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী প্রাণভিক্ষা চাইবেন কি না সে সিদ্ধান্ত তিনি নিজেই নেবেন।

এসময় ‘জাতীয় সংসদে দীর্ঘদিনের সহকর্মী হিসেবে বিষয়টি রাষ্ট্রপতি সুবিবেচনা করবেন,’ বলে আশা প্রকাশ করেন ফারহাত কাদের চৌধুরী।

উল্লেখ্য, কারাবিধি অনুযায়ি আইনি প্রক্রিয়া শেষ হয়ে যাওয়ার পর ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি কেবল পরিবারের সঙ্গেই দেখা করতে পারে। এবং রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদনের বাইরে ব্যক্তিগত চিঠি পাঠাতে পারে না। ফাঁসির আসামি প্রাণভিক্ষা না চাইলে যে কোন সময়ে ফাঁসি কার্যকর হতে পারে।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/বিএন/ওয়াইএম/এসবি

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত