সর্বশেষ

  অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদোন্নতি পেলেন জ্যোতির্ময়   নগরী থেকে সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেফতার   জামিন পেলেন পৌর শ্রমিকলীগ নেতা তানিন   বিশ্বনাথে উপজেলা আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা   সরকারের পাশাপাশি অসহায়দের পাশে বিত্তবানদের এগিয়ে আসা উচিত: নাদেল   সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ফটোগ্রাফিক সোসাইটির নতুন কমিটি   নগরীতে পুলিশের অভিযানে ভারতীয় মদসহ গ্রেফতার ১   বাবনিয়া হাসিমপুর নিজামিয়া আলিম মাদ্রাসায় ওয়াজ মাহফিল সম্পন্ন   শুরুতেই সিলেটবাসীকে সুখবর দিলেন শাহজাহান কামাল   ‘শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে বাংলাদেশ ‘জঙ্গি-সন্ত্রাসমুক্ত’ রাষ্ট্র হয়েছে’   শহরতলীর তেমুখীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩   বাগবাড়ীতে শিক্ষকের বাসায় দুর্ধর্ষ চুরি   শাবিতে তিনদিনব্যাপী ‘উৎসবে অনিরুদ্ধ’ শুরু   জেলা বিএনপি নেতা ফারুকের উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ   গোপালপুরে মাঠে শীতকালীন বিষমুক্ত সবজির বাম্পার ফলন   মনিপুরি পাড়ায় ৫ দিনব্যাপি মহানামযজ্ঞ উৎসব শুরু   কমরেড অমল সেনের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা   আব্দুর রহমান বর্নী (রহঃ) ইছালে সওয়াব মাহফিল বাস্তবায়নে প্রস্তুতি সভা   ওসামানী স্মৃতি পরিষদ বাংলাদেশ’র শীতবস্ত্র বিতরণ   দি হলি চাইল্ড স্কুল এন্ড কলেজ’র নতুন ক্যাম্পাস উদ্বোধন

গ্রেনেড হামলা মামলায় লড়তে চান মুজাহিদ

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-২১ ১৩:৩৫:৪৯

উত্তরপূর্ব ডেস্ক : শনিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৫ ॥ একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মুহাম্মদ মুজাহিদ এখন ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার শেষ দেখতে চান। মুজাহিদ বর্তমানে কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন। মানবতাবিরোধী অপরাধের জন্য তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইবেন কি না- এ নিয়ে যখন আলোচনা চলছে, তার মধ্যে মুজাহিদের স্ত্রী সংবাদ সম্মেলন করে এ কথা জানালেন।

আজ শনিবার সকালে সুপ্রিমকোর্ট বার অডিটোরিয়ামে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে মুজাহিদের স্ত্রী তামান্না-ই-জামান বলেন- ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার অভিযোগ সম্পর্কে রাষ্ট্রপতির কাছে জানতে চান তার স্বামী মুজাহিদ। মামলাটির সাক্ষ্যগ্রহণ এখন কোন পর্যায়ে রয়েছে তাও তিনি জানতে চান।

তামান্না বলেন, ‘এই মামলার অন্যতম আসামি ছিলেন আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ। এমতাবস্থায় মুজাহিদ বাংলাদেশের একজন নাগরিক হিসেবে এই মামলায় নিজের পক্ষে শেষ পর্যন্ত আইনি লড়াই চালিয়ে যাওয়ার অধিকার রাখেন।’

তামান্না জানান- গত ১৯ নভেম্বর পরিবারে সঙ্গে সাক্ষাতের সময় মুজাহিদ তাদের জানিয়েছিলেন, মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আপিল বিভাগের দেয়া আদেশের কপি তার কাছে আসলে তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে লিখিতভাবে জানতে চাইবেন যে, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় তার অবস্থান কী হবে? সম্পূরক চার্জশিটে তার নাম অন্তর্ভুক্ত করার কারণে জাতির সামনে একজন হত্যাকারী হিসেবে তার নাম এসেছে। আর সেই কারণেই তিনি আইনি লড়াই করে সেই দায় থেকে মুক্তি পেতে চান বলেও যোগ করেন মুজাহিদপত্নী।

তিনি বলেন- এই পর্যন্ত আদালতে হাজির হওয়া কোনো সাক্ষী এই ঘটনার সঙ্গে তাকে (মুজাহিদ) জড়িয়ে কোনো বক্তব্য রাখেননি। বিশেষ ট্রাইব্যুনালে মামলা চলমান থাকা অবস্থায় যদি অন্য কোনো মামলায় তার দণ্ড কার্যকর করা হয় তাহলে সেটা হবে তার নাগরিক অধিকারের লঙ্ঘন। মুজাহিদ এই দেশের একজন নাগরিক হিসাবে মহামান্য রাষ্ট্রপতিকে সংবিধানের অভিভাবক মনে করেন। যেহেতু রাষ্ট্রপতি ব্যক্তিগত জীবনে একজন আইনজীবী ও আইনবিদ। তাই তিনি আশা করেন রাষ্ট্রপতি নাগরিক হিসাবে তার আইনি ও সাংবিধানিক অধিকার রক্ষায় কার্যকর ব্যবস্থা নেবেন। আমি এবং আমার পরিবার আমার স্বামীর এই আবেদনটি তার ইচ্ছা অনুযায়ী রাষ্ট্রপতির কাছে পৌঁছাতে চায়। আমরা আশা করি এই ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট সকলে সহযোগিতা করবেন।

এই সংবাদ সম্মেলনে মুজাহিদের স্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন- মুজাহিদের ছেলে আলী আহাম্মেদ মাবরুর ও আলী আহাম্মদ তাহকীক, মাবরুরের খালা শাফিয়া তাসনিন, মুজাহিদের ভাই আলী আক্কাস মো. খালেছ ও আরেক ভাই মো. আজগর। এছাড়া মুজাহিদের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলার দুই আইনজীবী এসএম কামাল উদ্দিন শেখ ও সাইফুর রহমানও সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।  

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/বিএম/এসবি

সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত