সর্বশেষ

  লতিপুর জামে মসজিদে দারুল কিরাতের সমাপনী অনুষ্ঠান সম্পন্ন   পবিত্র ঈদুল ফিতরে শফিক চৌধুরীর শুভেচ্ছা   সৌদি আরবে ঈদ রোববার   ছাতকে ৪ গরু চোরকে গণধোলাই দিয়েছে স্থানীয় জনতা   ফেঞ্চুগঞ্জে হাবিবুর রহমান হাবিবের উদ্যোগে ঈদসামগ্রী বিতরণ   প্রবাসীদের অর্থায়নে ওসমানীনগরে ঈদবস্ত্র বিতরণ   মাটিধস : দুর্ঘটনা এড়াতে মাধবকুণ্ডে পর্যটক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা   ঈদানন্দ বঞ্চিত সদর উপজেলার ৭শ’ শিক্ষক পরিবার   যুক্তরাজ্যে কাভার্ড ভ্যান হামলায় নিহত মোকাররমের বাড়িতে লুনা   রোড রোলার ও স্কিট লোডার বরাদ্দ পেয়েছে বিয়ানীবাজার পৌরসভা   ঈদ উপলক্ষে কান্দিগাঁও ইউনিয়নে ভিজিএফের গম বিতরণ   ঈদকে সামনে রেখে এসএমপির বিশেষ নির্দেশনা   ‘প্রত্যয়’র প্রত্যয়ী মনোভাবে হাসি ফুটলো আড়াইশ’ অসহায় ও পথশিশুর মুখে   সৌদি আরবের গ্রান্ড মসজিদে আত্মঘাতি বোমা হামলা: নিহত ১, নারীসহ আটক ৫   বাহুবলে এতিমখানার শিশুদের হাতে ঈদের কাপড় তুলে দিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা   বিয়ানীবাজারে গৃহকর্মী হত্যার অভিযোগে লাউতা ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য গ্রেফতার   পাকিস্তানে বোমা বিস্ফোরণে নিহত ৫৪   ঈদে বাড়ি ফেরা: রংপুরে ট্রাক উল্টে নিহত ১৬   সাবেক অধ্যক্ষ মোদাব্বীর আলী আর নেই   চীনের সিচুয়ান প্রদেশে ভূমিধসে নিখোঁজ ১৪০

গ্রেনেড হামলা মামলায় লড়তে চান মুজাহিদ

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-২১ ১৩:৩৫:৪৯

উত্তরপূর্ব ডেস্ক : শনিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৫ ॥ একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মুহাম্মদ মুজাহিদ এখন ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার শেষ দেখতে চান। মুজাহিদ বর্তমানে কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন। মানবতাবিরোধী অপরাধের জন্য তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইবেন কি না- এ নিয়ে যখন আলোচনা চলছে, তার মধ্যে মুজাহিদের স্ত্রী সংবাদ সম্মেলন করে এ কথা জানালেন।

আজ শনিবার সকালে সুপ্রিমকোর্ট বার অডিটোরিয়ামে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে মুজাহিদের স্ত্রী তামান্না-ই-জামান বলেন- ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার অভিযোগ সম্পর্কে রাষ্ট্রপতির কাছে জানতে চান তার স্বামী মুজাহিদ। মামলাটির সাক্ষ্যগ্রহণ এখন কোন পর্যায়ে রয়েছে তাও তিনি জানতে চান।

তামান্না বলেন, ‘এই মামলার অন্যতম আসামি ছিলেন আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ। এমতাবস্থায় মুজাহিদ বাংলাদেশের একজন নাগরিক হিসেবে এই মামলায় নিজের পক্ষে শেষ পর্যন্ত আইনি লড়াই চালিয়ে যাওয়ার অধিকার রাখেন।’

তামান্না জানান- গত ১৯ নভেম্বর পরিবারে সঙ্গে সাক্ষাতের সময় মুজাহিদ তাদের জানিয়েছিলেন, মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আপিল বিভাগের দেয়া আদেশের কপি তার কাছে আসলে তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে লিখিতভাবে জানতে চাইবেন যে, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় তার অবস্থান কী হবে? সম্পূরক চার্জশিটে তার নাম অন্তর্ভুক্ত করার কারণে জাতির সামনে একজন হত্যাকারী হিসেবে তার নাম এসেছে। আর সেই কারণেই তিনি আইনি লড়াই করে সেই দায় থেকে মুক্তি পেতে চান বলেও যোগ করেন মুজাহিদপত্নী।

তিনি বলেন- এই পর্যন্ত আদালতে হাজির হওয়া কোনো সাক্ষী এই ঘটনার সঙ্গে তাকে (মুজাহিদ) জড়িয়ে কোনো বক্তব্য রাখেননি। বিশেষ ট্রাইব্যুনালে মামলা চলমান থাকা অবস্থায় যদি অন্য কোনো মামলায় তার দণ্ড কার্যকর করা হয় তাহলে সেটা হবে তার নাগরিক অধিকারের লঙ্ঘন। মুজাহিদ এই দেশের একজন নাগরিক হিসাবে মহামান্য রাষ্ট্রপতিকে সংবিধানের অভিভাবক মনে করেন। যেহেতু রাষ্ট্রপতি ব্যক্তিগত জীবনে একজন আইনজীবী ও আইনবিদ। তাই তিনি আশা করেন রাষ্ট্রপতি নাগরিক হিসাবে তার আইনি ও সাংবিধানিক অধিকার রক্ষায় কার্যকর ব্যবস্থা নেবেন। আমি এবং আমার পরিবার আমার স্বামীর এই আবেদনটি তার ইচ্ছা অনুযায়ী রাষ্ট্রপতির কাছে পৌঁছাতে চায়। আমরা আশা করি এই ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট সকলে সহযোগিতা করবেন।

এই সংবাদ সম্মেলনে মুজাহিদের স্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন- মুজাহিদের ছেলে আলী আহাম্মেদ মাবরুর ও আলী আহাম্মদ তাহকীক, মাবরুরের খালা শাফিয়া তাসনিন, মুজাহিদের ভাই আলী আক্কাস মো. খালেছ ও আরেক ভাই মো. আজগর। এছাড়া মুজাহিদের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলার দুই আইনজীবী এসএম কামাল উদ্দিন শেখ ও সাইফুর রহমানও সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।  

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/বিএম/এসবি

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত