সর্বশেষ

  শ্রমিক সংগঠনে বিভক্তি: এবার শ্রমিকলীগ নেতা এজাজকে বহিষ্কারের দাবি   চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন ড. মোমেন   ওসমানীনগর উপজেলা নির্বাচন: ভোটারদের দেওয়া প্রতিশ্রুতি কী রাখতে পারবেন প্রার্থীরা?   আমেরিকা আমাদের ট্যাক্সেও চলে : শেখ হাসিনা   ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিইউ বিভাগের যাত্রা শুরু   স্কুলছাত্রীকে ‘দলবেঁধে ধর্ষণ’ : আটক ১   সিলেট-জকিগঞ্জ সড়ক সংস্কারের দাবিতে নিসচা’র মানববন্ধন   ধর্মপাশায় তলিয়ে গেছে ২৫০ একর জমির ফসল   হজরত রকীব শাহ (রহ.)-এর ৫১তম বার্ষিক ওরস শরিফ ২৮ ফেব্রুয়ারি শুরু   তাহিরপুরে ব্র্যাকের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত   খুব সস্তা ছিল তাই গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়েছে : সিলেটে অর্থমন্ত্রী   ওসমানীনগরে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে গৃহবধূকে ছুরিকাঘাত   কক্সবাজারে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫   বাঁধ নির্মাণ হয়নি : হুমকির মুখে সমসার হাওর   ক্রিকইনফোর বর্ষসেরা মিরাজ   বায়োস্কোপের নেশায় আমায় ছাড়ে না...   যুক্তরাজ্যে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের আন্দোলনে নব্বই শতাংশ লোকই ছিলেন সিলেটের   সিলেট ফিরে বদরুলের শাস্তি চাইলেন খাদিজা   সিলেটের উন্নয়নে সহায়তা দেবে ভারত   শাহ আবদুল করিম লোক উৎসব ৩ মার্চ

শুভ জন্মদিন হুমায়ূন আহমেদ

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-১৩ ০২:৩১:২১

উত্তরপূর্ব ডেস্ক : শুক্রবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৫ ॥ নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ। সহজ ভাষায় লেখনির জাদুতে পাঠক হৃদয়ে তৈরি করেছেন এক আলাদা স্থান। বলা হয়, বাংলাদেশের স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় লেখক তিনি।

১৩ নভেম্বর (শুক্রবার) আধুনিক বাংলা সাহিত্যের এ পথিকৃতের জন্মদিন। ১৯৪৮ সালের এ দিনে পৃথিবীতে এসেছিলেন সাহিত্যাকাশের এ উজ্জ্বল নক্ষত্র।
 
ঔপন্যাসিক, ছোটগল্পকার, নাট্যকার ও গীতিকার হিসেবে হুমায়ূন আহমেদের আসল পরিচিতি। ভিন্নধর্মী নাটক ও চলচ্চিত্র নির্মাণ করেও মিডিয়াতে একটি নিজস্ব ধারা উন্মোচন করেছেন। যা আজও দর্শকদের কাছে বিশেষ আকর্ষণের।

পেশাজীবনে তিনি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক। পরবর্তীতে সাহিত্যের প্রতি মনোযোগ দিতে অধ্যাপনা ছেড়ে দেন।
 
দুই শতাধিক গ্রন্থের লেখক হুমায়ূন আহমেদের বিশেষ উপন্যাসগুলোর মধ্যে রয়েছে নন্দিত নরকে, মধ্যাহ্ন, জোছনা ও জননীর গল্প, মাতাল হাওয়া ইত্যাদি।

তার সৃষ্ট জনপ্রিয় চরিত্রগুলোর মধ্যে হিমু ও মিসির আলী অন্যতম।

হুমায়ুন আহমেদ নির্মিত উল্লেখযোগ্য ও জনপ্রিয় চলচ্চিত্র হচ্ছে দুই দুয়ারী, শ্রাবণ মেঘের দিন, দারুচিনি দ্বীপ, ঘেঁটুপুত্র কমলা ইত্যাদি।

২০১২ সালে নির্মিত ঘেঁটুপুত্র কমলা ছিলো হুমায়ূন আহমেদের পরিচালিত শেষ চলচ্চিত্র। দীর্ঘ নয় মাস মলাশয়ের ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করে চিকিৎসাধীন  অবস্থায় ২০১২ সালের ১৯ জুলাই নিউ ইয়র্কের বেলেভ্যু হসপিটালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

হুমায়ূন আহমেদ তার সৃষ্টির মাধ্যমে পাঠক ও দর্শক মনে যে স্থান তৈরি করেছেন, তা অভিন্ন ও অপরিবর্তনীয়। তিনি আজও বেঁচে রয়েছেন তার লেখা ও তার সৃষ্ট চরিত্রগুলোর মধ্যে।

জন্মদিনে প্রিয় লেখকের জন্য রইলো শ্রদ্ধাঞ্জলি।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/ডেস্ক/টিআই-আর

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত