সর্বশেষ

  কানাইঘাটে লেগুনার ধাক্কায় নিহত ট্রাক চালকের দাফন সম্পন্ন   মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটিতে আত্মপ্রকাশ করলো ‘হাত বাড়াও’   ছাতকে সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার   মাদক ব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগে ছাতকে ভাই-বোনসহ আটক ৩   ছাতকে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১৫   বিশ্বভারতীতে শেখ হাসিনার জন্য প্রস্তুত উপহারের ডালি   সুধীজনদের মিলনমেলায় সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের ইফতার মাহফিল সম্পন্ন   শাবিতে কর্মচারীকে বেধড়ক পিটুনী   বাহুবলে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে কৃষকের মৃত্যু   বিদ্রোহী কমিটি গঠন নিয়ে সিলেট জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের বিবৃতি   মিসবাহ সিরাজকে শুভেচ্ছা জানালেন নবগঠিত সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতৃবৃন্দ   জমির উদ্দিন ভুলাই মেম্বারের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও ইফতার মাহফিল   বিশ্বনাথের দিঘলীতে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্রের নির্মাণ কাজ শুরু   রোহিঙ্গা শিশুদের সঙ্গে গল্প-খুনসুটিতে প্রিয়াংকা চোপড়া   ওসমানীতে ২ কোটি টাকার বিদেশি মুদ্রাসহ আটক ১   রাজনগরে ভাইয়ের হামলায় আহত ভাইয়ের মৃত্যু   বনানীতে সমাহিত করা হবে তাজিন আহমেদকে   প্রকৌশলী আব্দুল কাদিরকে সংবর্ধনা   ফের সন্ত্রাসী সংগঠনের আখ্যা পেল বিএনপি   কুলাউড়ায় অগ্নিকাণ্ডে প্রায় ২০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

আজীবন সম্মাননা পেলেন লতিফুর রহমান

প্রকাশিত : ২০১৭-১০-১৭ ২২:৪১:১৯

উত্তরপূর্ব ডেস্ক : মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৭ ॥ ট্রান্সকম গ্রুপের চেয়ারম্যান লতিফুর রহমানকে আজীবন সম্মাননা প্রদান করেছে যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশিদের শীর্ষ ব্যবসায়িক সংগঠন ইউকে বাংলাদেশ ক্যাটালিস্ট অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (ইউকে বিসিসিআই)। নৈতিকতার সঙ্গে ব্যবসা করে অসাধারণ সাফল্য অর্জন এবং বাংলাদেশে বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থান তৈরিতে অসামান্য অবদানের নজির স্থাপন করায় এই সম্মাননা দেওয়া হয়।

লন্ডনে স্থানীয় সময় গত রোববার রাতে হিলটন পার্ক লেন হোটেলের বলরুমে সংগঠনটির বার্ষিক গালা ডিনার ও অ্যাওয়ার্ডস প্রদান অনুষ্ঠানে তাঁর হাতে এ সম্মাননা তুলে দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর পলিসি বোর্ডের চেয়ার জর্জ ফ্রিম্যান এমপি এই সম্মাননা তুলে দেন।

এ সময় মঞ্চে ছিলেন ব্রিটিশ সংসদের উচ্চকক্ষ হাউস অব লর্ডসের সদস্য কারেন বিলিমোরিয়া, বাংলাদেশের র‌্যাংগ্স গ্রুপের চেয়ারম্যান আবদুর রউফ, ইউকে বিসিসিআইয়ের চেয়ারম্যান ইকবাল আহমদ এবং সংগঠনটির প্রেসিডেন্ট বজলুর রশিদ।

ব্রিটিশ বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের বর্ণাঢ্য এ আয়োজনে অ্যান মেইন, স্টিফেন টিমস, পল স্কালি, রুশনারা আলী, ব্যারোনেস পলা মঞ্জিলাসহ যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন দলের রাজনীতিক, শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন পেশার বিশিষ্টজনেরা উপস্থিত ছিলেন।

নয়টি ভিন্ন শ্রেণিতে যুক্তরাজ্যে উদীয়মান উদ্যোক্তাদের এবার অ্যাওয়ার্ডস প্রদান করা হয়। এসবের বাইরে লতিফুর রহমানসহ মোট তিনজনকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করে সংগঠনটি। বাকি দুজনের মধ্যে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ এমপি রুশনারা আলীকে বিশেষ স্বীকৃতি অ্যাওয়ার্ডস (স্পেশাল রিকগনিশন অ্যাওয়ার্ডস) এবং যুক্তরাজ্যের কিক বক্সিং চ্যাম্পিয়ন রুকসানা বেগমকে ডাইরেক্টরস চয়েস অ্যাওয়ার্ডস প্রদান করা হয়।

সম্মাননা পরবর্তী প্রতিক্রিয়া জানিয়ে লতিফুর রহমান তাঁর নিজের ও বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়ার গল্প শোনান। জীবনে বারবার কঠিন মুহূর্তের মুখোমুখি হয়েছেন উলে­খ করে তিনি বলেন, গত বছরের ১ জুলাই ঢাকার হোলি আর্টিজান বেকারিতে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় তিনি আদরের নাতি ফারাজ আইয়াজ হোসেনকে হারিয়েছেন।

বন্ধুদের জন্য ফারাজের জীবন উৎসর্গের বর্ণনা তুলে ধরে তিনি বলেন- উগ্রবাদীরা যা করছে, তা প্রকৃত ইসলাম নয়। বরং ফারাজ মানবিকতা ও ভালোবাসার যে নজির স্থাপন করে গেছেন, সেটাই প্রকৃত ইসলাম। বাংলাদেশকে একটি সহনশীল এবং উদার দেশ হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন- ফারাজ যে সাহস ও উদারতা দেখিয়েছেন, সেটাই বাংলাদেশ। তিনি ফারাজের স্মৃতির প্রতি নিজের সম্মাননা উৎসর্গ করেন। এ সময় হলভর্তি দর্শক দাঁড়িয়ে করতালি দিয়ে লতিফুর রহমানকে অভিবাদন জানান।

লতিফুর রহমান বলেন- ওই সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার পর সরকার অত্যন্ত কার্যকর উপায়ে এবং গুরুত্বের সঙ্গে জঙ্গিবাদ দমনে শূন্য সহনশীলতা নীতি নিয়ে মাঠে নেমেছে। ইতিমধ্যে বড় ধরনের সাফল্য এসেছে। তবে সন্ত্রাসীরা যাতে মাথা তুলে দাঁড়াতে না পারে, এ জন্য বাংলাদেশকে প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে। চলমান রোহিঙ্গা সমস্যা মোকাবিলাসহ বাংলাদেশের অগ্রযাত্রায় ব্রিটিশ এমপি ও ব্যবসায়ীদের পাশে থাকার আহবান জানান লতিফুর রহমান। তিনি বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়নযাত্রা কেবল শুরু হয়েছে, এগিয়ে যাওয়ার সব অনুষঙ্গ এ দেশে আছে।

সংগঠনটির প্রেসিডেন্ট ইকবাল আহমদ দিলি­ থেকে ব্রিটিশ ভিসা অফিস ঢাকায় ফিরিয়ে আনার আহবান জানিয়ে বলেন, ব্যবসা, চিকিৎসা, শিক্ষা, ভ্রমণসহ নানা কাজে বাংলাদেশিরা যুক্তরাজ্যে আসেন, যুক্তরাজ্যের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। কিন্তু তিন বছর ধরে ভিসা নিয়ে নানা ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে বাংলাদেশিদের।

চলমান রোহিঙ্গা সংকটে বাংলাদেশের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে অ্যান মেইন এমপি বলেন, মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ওপর যা করছে, তা জাতিগত নিধন। ব্রিটিশ এমপিরা বাংলাদেশের পক্ষে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়ে রোহিঙ্গাদের জন্য আর্থিক সাহায্য প্রদানে সবাইকে আহবান জানান।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/প্রেবি/টিআই-আর

সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত