সর্বশেষ

  হাওরবাসীর দুর্যোগ নিয়ে তামাশা করবেন না   “আমি একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, আমার কোন চাওয়া পাওয়া নেই”   গোলাপগঞ্জে বিদ্যুতায়িত হয়ে শিক্ষার্থীর মৃত্যু   রশিদিয়া দাখিল মাদরাসায় বিশ্ব বই দিবস উদযাপন   এনইইউবিতে ‘ক্যারিয়ার ক্লাব’র যাত্রা শুরু   ধর্মপাশা সদর ইউনিয়নের বাজেট ঘোষণা   জামালগঞ্জে এক কিশোরীর দুই জন্ম নিবন্ধন: বাল্যবিবাহ সম্পন্ন, এলাকায় তোলপাড়   বিশ্বনাথে ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ৩২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে র‌্যালী   কাউন্সিলর আফতাবকে ৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের সংর্বধনা   সব চেষ্টা ব্যর্থ, তলিয়ে গেল শনি: হাওরপাড়ে চলছে কৃষকের আহাজারি   হাওরের ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার পাবে মাসে ৩০ কেজি চাল ও নগদ অর্থ   মহাজনী ও এনজিও ঋনের চাপ: সব হারিয়ে দিশেহারা হাওরবাসী   বাবাকে ছাপিয়ে যেতে চান টাইগার শ্রফ   বাজারে আসুসের তিন জেনফোন   সুনামগঞ্জে শনির হাওরের বাঁধে ৩টি স্থানে ভাঙন   মহামতি লেনিনের জন্মবার্ষিকীতে সিলেটে লাল পতাকা মিছিল   ফ্রান্সে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে   লাখাইয়ে দেশীয় অস্ত্রসহ ৩ ডাকাত গ্রেফতার   আত্মসমর্পণ করে জামিন পেলেন তারেকের শাশুড়ি সিলেটের সৈয়দা ইকবাল মান্দ বানু   শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি হয়েছে : সিলেটে খাদ্যমন্ত্রী

জিওনা চানার ৩৯ স্ত্রী, ৯৪ সন্তান, ৩৩ নাতি-নাতনী!

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-০৮ ০১:৪৯:৫৪

উত্তরপূর্ব ডেস্ক : রোববার, ০৮ নভেম্বর ২০১৫ ॥ একজন নয়, দু’জন নয়, নয় ১০জন। ৩৯ জন স্ত্রীর গর্বিত স্বামী তিনি! ৩৯ জন পতিপ্রাণা স্ত্রীর গর্ভজাত পুত্রকন্যার সংখ্যা ৯৪ জন। আর নাতিনাতনী ৩৩ জন। একুনে ১৬৭ জনের বৃহ এক (নাকি দুনিয়ার বৃহত্তম?) পরিবার তার। মজার ব্যাপার সবাইকে নিয়ে একই ছাদের নিচে সুখে শান্তিতে বাস করছেন বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের সীমান্তবর্তী ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য মিজোরামের এক প্রত্যন্ত পার্বত্য গ্রামের বাসিন্দা জিওনা চানা (Ziona Chana)। পত্রিকার শিরোনাম: ‘Indian man has 39 wives, 94 children and 33 grandchildren all living under the SAME roof.’

জিওনা চানার ১৬৭ সদস্যের পরিবারটি থাকে চারতলা এক দালানে ১০০টি কক্ষে। এতোগুলো বিয়ে করার পরও  কিন্তু ৬৬ বছর বয়সেও বিয়ের খায়েশ মেটেনি তার। তিনি আরো বেশি বেশি বিয়ে করে নিজের পরিবারটিকে আরো বড় করতে চান। এখনো প্রতিবার স্ত্রীদের মধ্য থেকে ৭ থেকে ৮ জনকে থাকেন তিনি। এভাবে পালাক্রমে অন্য ৭/৮জন স্ত্রী তার সঙ্গে থাকেন। একবার তিনি একবছরে ১০জন নারীর পাণিগ্রহণ করেছিলেন।তার নিজের ভাষায়, ‘এমনকি আজকও আমি আমি আমার পরিবারটাকে আরো বড় করতে প্রস্তুত, আর যতো বেশি সম্ভব বিয়ের পিঁড়িতে বসতে আগ্রহী।’  

এই বৃহৎ পরিবারটির প্রতিদিনকার খাবারের চাহিদাও চোখ কপালে তোলার মতো --–২০০ পাউন্ড চাল এবং ১৩০ পাউন্ড আলু। সব খাবারই একটা রসুইঘরে রান্না হয়। পতিব্রতা স্ত্রীরা সবাই মিলেমিশে খাবার রান্না করেন। আর ধোয়া-মোছা ও বাড়িঘর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার কাজটা করে তার কন্যা ও নাতনীরা। আর বাড়ির বাইরের কৃষিকাজ, গরু-মহিষ ও গবাদিপশুর দেখভাল-লালন-পালন করে নাতি ও পুত্ররা।

জিওনা চানার গর্বিত উক্তি: ‘যত্ন-আত্তি ও দেখভাল করার জন্য আমার আছে এতো-এতো লোক; আর সে-কারণে আমি নিজেকে একজন ভাগ্যবান বলেই মনে করি আমি।’.

জিওনা চানা খিস্টধর্মের অনুসারী। স্থানীয়ভাবে তারা ‘চানা’ গোত্রের মানুষ। এই গোত্রটি বহুবিবাহকে অনুমোদন এবং উৎসাহিত করে থাকে।.

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/ডেস্ক/টিআই-আর

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত