সর্বশেষ

  শ্রমিক সংগঠনে বিভক্তি: এবার শ্রমিকলীগ নেতা এজাজকে বহিষ্কারের দাবি   চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন ড. মোমেন   ওসমানীনগর উপজেলা নির্বাচন: ভোটারদের দেওয়া প্রতিশ্রুতি কী রাখতে পারবেন প্রার্থীরা?   আমেরিকা আমাদের ট্যাক্সেও চলে : শেখ হাসিনা   ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিইউ বিভাগের যাত্রা শুরু   স্কুলছাত্রীকে ‘দলবেঁধে ধর্ষণ’ : আটক ১   সিলেট-জকিগঞ্জ সড়ক সংস্কারের দাবিতে নিসচা’র মানববন্ধন   ধর্মপাশায় তলিয়ে গেছে ২৫০ একর জমির ফসল   হজরত রকীব শাহ (রহ.)-এর ৫১তম বার্ষিক ওরস শরিফ ২৮ ফেব্রুয়ারি শুরু   তাহিরপুরে ব্র্যাকের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত   খুব সস্তা ছিল তাই গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়েছে : সিলেটে অর্থমন্ত্রী   ওসমানীনগরে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে গৃহবধূকে ছুরিকাঘাত   কক্সবাজারে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫   বাঁধ নির্মাণ হয়নি : হুমকির মুখে সমসার হাওর   ক্রিকইনফোর বর্ষসেরা মিরাজ   বায়োস্কোপের নেশায় আমায় ছাড়ে না...   যুক্তরাজ্যে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের আন্দোলনে নব্বই শতাংশ লোকই ছিলেন সিলেটের   সিলেট ফিরে বদরুলের শাস্তি চাইলেন খাদিজা   সিলেটের উন্নয়নে সহায়তা দেবে ভারত   শাহ আবদুল করিম লোক উৎসব ৩ মার্চ

অনলাইন পত্রিকা চালাতে লাগবে নিবন্ধন

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-১০ ০০:৩৭:৪১

উত্তরপূর্ব ডেস্ক : মঙ্গলবার, ১০ নভেম্বর ২০১৫ ॥ ‘অপসাংবাদিকতা’ রোধে সব অনলাইন গণমাধ্যমকে নিবন্ধনের আওতায় আনতে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছে সরকার।

সোমবার এক তথ্যবিবরণীতে এ কথা জানানো হয়।

পত্রিকার অনলাইন সংষ্করণের বিষয়ে কিছু উল্লেখ না থাকলেও তথ্য মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, পত্রিকাগুলোকেও তাদের অনলাইন সংষ্করণের জন্য নতুন করে আবেদন করতে হবে।

তথ্যবিবরণীতে বলা হয়, দেশের অনলাইন পত্রিকার প্রকাশকদের পত্রিকা প্রকাশের ক্ষেত্রে সরকারি সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করা এবং অপসাংবাদিকতা রোধ করার লক্ষ্যে সরকার অনলাইন পত্রিকা নিবন্ধন কার্যক্রম চালু করেছে।

“এ লক্ষ্যে নির্ধারিত নিবন্ধন ফরম ও একটি প্রত্যয়নপত্র বা হলফনামা পূরণ করে তথ্য অধিদপ্তরে জমা দিতে হবে।”

আবেদন ফরম এবং প্রত্যয়নপত্রের নমুনা তথ্য অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

নিবন্ধনের জন্য ফরম ও প্রত্যয়নপত্রের নমুনা সাময়িকভাবে তথ্য অধিদপ্তরের প্রটোকল শাখা থেকে সংগ্রহ করা যাবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।

বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকার দাখিল করা তথ্য যাচাই করে তথ্য অধিদপ্তর নিবন্ধন দেবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে তথ্য অধিদপ্তরের জ্যেষ্ঠ তথ্য কর্মকর্তা (প্রটোকল) মো. শাহেনূর মিয়া বলেন, সরকার সব অনলাইন গণমাধ্যমকে একটি নিয়মের মধ্যে আনার উদ্যোগ নিয়েছে।

“সব অনলাইন গণমাধ্যমে নির্ধারিত ফরমেটে আবেদন করে নিবন্ধন নিতে হবে। নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন গণমাধ্যমই কেবল অ্যাক্রিডিটেশন কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবে।”

তথ্য মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, নিবন্ধন পাওয়া কোনো অনলাইন পত্রিকা কয়টি অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড পাবে তা ওই পত্রিকার অ্যালেক্সা রেটিং, গুগল অ্যানালিটিক্স, নিজস্ব কনটেন্টের পরিমাণ ও সাংবাদিকের সংখ্যার উপর ভিত্তি করে দেওয়ার চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে।

তথ্যমন্ত্রী এবং তথ্যসচিবের নির্দেশনা অনুযায়ীই তথ্য অধিদপ্তরকে অনলাইন পত্রিকাগুলোকে নতুন করে নিবন্ধনের আওতায় আনার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বলে জানান এই কর্মকর্তা।

তিনি জানান, বর্তমানে ১৩৮টি অনলাইন পত্রিকাকে অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড দেওয়া হয়েছে। আর সারা দেশের প্রায় তিন হাজার গণমাধ্যম অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড পেয়েছে।

“কোনো অনলাইন পত্রিকাকে নিবন্ধন দেওয়ার আগে পুলিশের বিশেষ বিভাগের কর্মকর্তরা ওই অনলাইন পত্রিকার অফিস পরিদর্শন করে মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন দেবে।”

তবে তথ্যবিরবরণীতে বিভিন্ন পত্রিকার অনলাইন ভার্সনের নতুন করে নিবন্ধের বিষয়ে কিছু বলা হয়নি।

এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তথ্য মন্ত্রণালয়ের ওই কর্মকর্তা বলেন, “পত্রিকাগুলোর অনলাইনের জন্যও নতুন করে নিবন্ধন নিতে হবে।”

শাহেনূর মিয়া জানান, এর আগে অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড পাওয়া যেসব অনলাইন পত্রিকা নতুন করে নিবন্ধন পাবে না তাদের কার্ড বাতিল করা হবে।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/ডেস্ক/টিআেই-আর

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত