সর্বশেষ

  ভাস্কর্যটি সুপ্রিম কোর্টের বর্ধিত ভবনের সামনে পুনঃস্থাপন   ব্যক্তি উদ্যোগে কানাইঘাট পৌর সভার ভবানীগঞ্জ বাজার রাস্তার সংস্কারকাজ শুরু   মাধবপুরে একাধিক মামলার পলাতক আসামি গ্রেফতার   বিশ্বনাথে এলাকাবাসীর সাথে প্রশাসনের বৈঠক   জগন্নাথপুরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নারীসহ আহত ১৫   রমজানের পবিত্রতা রক্ষায় দক্ষিণ সুরমা কাঠ ক্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির র‌্যালি   খাঁরপাড়া আরজাদ আলী জামে মসজিদের উদ্বোধন করলেন সিটি মেয়র   নুরুলের দাদীর শয্যাপাশে ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন সিলেটের নেতৃবৃন্দ   ৬ষ্ঠ ঘূর্ণী প্রিমিয়ার ক্রিকেট টুর্নামেন্টের পুরস্কার বিতরণ   বিশ্বম্ভরপুরে বিএনপির আনন্দ মিছিল   জুড়ীতে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে   ভাস্কর্য সরানোর প্রতিবাদে মৌলভীবাজারে বিক্ষোভ সমাবেশ   বড়লেখায় কাবিটা ও কাবিখা’র আওতায় দরিদ্র ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সোলার প্যানেল বিতরণ   মোগলাবাজারে শাহ জকনের ত্রাণ বিতরণ   অংকন টেলেন্টপুলে জিপিএ-৫ পেয়েছে   মৌলভীবাজারে হলুদে সেজেছে প্রকৃতি, কদমের মৌ মৌ গন্ধ   দিরাইয়ে দুর্গত মানুষের পাশে প্রবাসী শফিকুল   দেশে উন্নয়নের জোয়ার বইছে : দক্ষিণ সুনামগঞ্জে এম.এ মান্নান   ‘বেসামরিক নাগরিকদের চিকিৎসাসেবায় বাংলাদেশ বাস্তবভিত্তিক পদ্ধতি গ্রহণ করছে’   দীর্ঘ ৮ বছর পর মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির নতুন কমিটি: আনন্দ মিছিল

সঙ্গী হত্যার প্রতিশোধ নিতে আসা বিষাক্ত গোখরোকে রুখে দিলো পোষা বিড়াল!

প্রকাশিত : ২০১৫-১০-০১ ২২:৫৩:২৬

আপডেট : ২০১৫-১০-০১ ২৩:০২:৪০

উত্তরপূর্ব ডেস্ক : বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর ২০১৫ ॥ মানুষের হাতে নিহত সঙ্গীর প্রতিশোধ নিতে অপর একটি সাপের ক্রুদ্ধ তৎপরতা দেখা গেছে সিলেট নগরীর খাদিমপাড়ার দিগন্ত আবাসিক এলাকার একটি বাসায়।

ঘটনাটি ঘটেছে গত বুধবার ঐ এলাকার শফিক মিয়ার ৪৫ নং বাসায়। 

গত ১ সেপ্টেম্বর শফিক মিয়ার বাসার পেছনে একটি লিচু গাছের ডালে একটি বিষাক্ত ‘আলদ’ (গোখরো) সাপকে বসে থাকতে দেখা যায়। এভাবে একটানা তিন তিন একই স্থানে অবস্থান করার পর এক পর্যায়ে সাপটি চলে যায়। এর একদিন পর আবার একই স্থানে সাপটিকে দেখা যায়। এতে সংশ্লিষ্ট বাসাসহ আশপাশের বাসার লোকজন আতংকিত হয়ে বন বিভাগের শরনাপন্ন হন। 


কিন্তু বন বিভাগ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কর্মী না থাকায় এ ব্যাপারে কোন সহায়তা করতে অপারগতা প্রকাশ করে। এ অবস্থায় সাপুড়ে অর্থাৎ ওঝাকে খবর দেয়া হয়। কিন্তু ওঝাও না আসায় এলাকার লোকজন এই ভীতিকর অবস্থা থেকে রেহাই পেতে সাপটিকে মেরে ফেলে। 

এরপরই ঘটে বিপত্তি। মৃত সাপটির সঙ্গী অপর একটি ‘গেছো আলদ’ (গোখরো সাপ) পরের দিন সকাল এগারোটার দিকে ৭ ফুট উঁচু দেয়াল টপকে ঐ বাসার আঙ্গিনায় চলে আসে এবং ঘরের ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করে। কিন্তু বাসার পোষা বিড়ালটি এই মারমুখী হিংস্র আগন্তুক প্রাণীটিকে ঢুকতে দেখে রুখে দাঁড়ায়। সাপটি বার বার ঘরে ঢুকতে চেষ্টা করলেও বিড়ালটি প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। প্রায় আড়াইঘন্টা চলে এই সাপ-বিড়ালের লড়াই। 

এ সময় বাসার লোকজন দোতলার বারান্দায় দাঁড়িয়ে এই অভিনব লড়াইয়ের দৃশ্য প্রত্যক্ষ করেন। কিন্তু এ সময় ঐ বাসা কিংবা আশপাশের বাসায় শুধু শিশু ও মহিলারা থাকায় বিড়ালটিকে সাহায্য করতে কেউ সাহসী হননি। যা-ই হোক, এক পর্যায়ে সাপটি রণে ভঙ্গ দিয়ে পিছু হটে। অর্থাৎ পোষা বিড়াল সাপটিকে তাড়িয়ে দিতে সক্ষম হয়। 

এ খবর পেয়ে গৃহকর্তা সাপুড়ে বা ওঝার সাথে যোগাযোগ করেন। এ পর্যায়ে তারা আর কালবিলম্ব না করে দ্রুত ঘটনাস্থলে চলে আসেন। পরদিন বৃহস্পতিবার সকাল ৮ টায় ওঝা ইব্রাহীম তার সঙ্গীদের নিয়ে চলে আসেন। 

দীর্ঘ প্রচেষ্টার পর যে সাপটি সঙ্গী হত্যার প্রতিশোধ নিতে এসেছিলো তাকে ধরতে সক্ষম হন ওঝা ইব্রাহীম। এছাড়া ইব্রাহীম ও তার সঙ্গীরা তার ছেলে আল মামুন এবং মেছয়ার আলী, মাহিদুল হোসেন ও আবুল কালাম পাশের খালি প্লট থেকে ‘ভীম আলদ’ নামে আরেকটি বিষাক্ত সাপ ধরেন। 

উৎসুক লোকজন সাপ ধরার দৃশ্য দেখার জন্য আশপাশের এলাকা থেকে এসে ভিড় করেন। বিষাক্ত সাপ দু’টি ধরার পর শফিক মিয়ার পরিবারে স্বস্তি নেমে এসেছে।

উল্লেখ্য, কোথাও সাপ দেখলে উঝা ইব্রাহীম আলীর মোবাইলে ০১৭৪৭-৩১৫ ৮১১ ও উঝা মেছের আলীর মোবাইল নং ০১৭৩২ ৮৬৩ ২৯৮ এ যোগাযোগ করতে অনুরোধ জানিয়েছেন।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/প্রেবি/টিআই-আর

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত