সর্বশেষ

  হাওরবাসীর দুর্যোগ নিয়ে তামাশা করবেন না   “আমি একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, আমার কোন চাওয়া পাওয়া নেই”   গোলাপগঞ্জে বিদ্যুতায়িত হয়ে শিক্ষার্থীর মৃত্যু   রশিদিয়া দাখিল মাদরাসায় বিশ্ব বই দিবস উদযাপন   এনইইউবিতে ‘ক্যারিয়ার ক্লাব’র যাত্রা শুরু   ধর্মপাশা সদর ইউনিয়নের বাজেট ঘোষণা   জামালগঞ্জে এক কিশোরীর দুই জন্ম নিবন্ধন: বাল্যবিবাহ সম্পন্ন, এলাকায় তোলপাড়   বিশ্বনাথে ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ৩২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে র‌্যালী   কাউন্সিলর আফতাবকে ৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের সংর্বধনা   সব চেষ্টা ব্যর্থ, তলিয়ে গেল শনি: হাওরপাড়ে চলছে কৃষকের আহাজারি   হাওরের ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার পাবে মাসে ৩০ কেজি চাল ও নগদ অর্থ   মহাজনী ও এনজিও ঋনের চাপ: সব হারিয়ে দিশেহারা হাওরবাসী   বাবাকে ছাপিয়ে যেতে চান টাইগার শ্রফ   বাজারে আসুসের তিন জেনফোন   সুনামগঞ্জে শনির হাওরের বাঁধে ৩টি স্থানে ভাঙন   মহামতি লেনিনের জন্মবার্ষিকীতে সিলেটে লাল পতাকা মিছিল   ফ্রান্সে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে   লাখাইয়ে দেশীয় অস্ত্রসহ ৩ ডাকাত গ্রেফতার   আত্মসমর্পণ করে জামিন পেলেন তারেকের শাশুড়ি সিলেটের সৈয়দা ইকবাল মান্দ বানু   শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি হয়েছে : সিলেটে খাদ্যমন্ত্রী

দেখা মিলবে ১৪ গুণ বড় রক্তিম চাঁদের

প্রকাশিত : ২০১৫-০৯-২৬ ১৫:৩০:৩৬

ফিচার ডেস্ক : শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫ ॥ মহাকাশ সম্পর্কে আগ্রহীরা যেন এখন থেকেই আকাশের দিকে চোখ রাখছেন। অবশ্য কোনো ভিনগ্রহবাসীর যান বা নতুন কোনো নক্ষত্র দেখার আশায় এই আকাশ পানে তাকানো নয়। চলতি বছরে পঞ্চমবারের মতো হতে যাচ্ছে সুপারমুন বা রক্তিম চাঁদ, আর সেই রক্তিম চাঁদ দেখার আশাতেই ওই আকাশ পানে তাকিয়ে থাকা। মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার পক্ষ থেকে আগামীকাল ২৭ সেপ্টেম্বর রাতের রক্তিম চাঁদকে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলা হচ্ছে। এই চাঁদের পিঠে সওয়ার হয়েই আসবে চলতি মাসের সর্বশেষ পূর্ণিমা।

রবিবার মধ্যরাতে স্বাভাবিক রাতগুলোর তুলনায় পৃথিবীর অনেকটাই কাছাকাছি চলে আসবে চাঁদ। ওই সময় চাঁদের সঙ্গে পৃথিবীর দূরত্ব হতে পারে আনুমানিক দুই লাখ ২১ হাজার ৭৫৪ মাইল। ঠিক ওই সময় পৃথিবী চাঁদ এবং সূর্যের মধ্যবর্তী স্থানে বিরাজ করবে। শুরুর দিকে চাঁদকে কিছুটা ধূসর থেকে শুরু হয়ে তামাটে বর্ণ ধারণ করলেও ক্রমশ রক্তিম বর্ণের দিকে যাবে। আবহাওয়াবিদদের মতে, রক্তিম চাঁদ পৃথিবীতে বিভিন্ন প্রাকৃতিক বিপর্যয় নিয়ে আসতে পারে। যদিও প্রকৃতিতে এখন পর্যন্ত সেরকম কোনো আলামত পাওয়া যায়নি।

চাঁদ পৃথিবীর কাছাকাছি অবস্থান করার কারণে চাঁদকে অন্যান্য দিনের তুলনায় ১৪গুন বেশি বড় এবং অন্তত ৩০ শতাংশ বেশি উজ্জ্বল দেখাবে। তবে এই দৃশ্য সবচেয়ে বেশি ভালোভাবে দেখা যাবে উত্তর আমেরিকা, বিশেষ করে পূর্ব উপকূলীয় অঞ্চল থেকে। তবে এশিয়া অঞ্চল থেকেও রক্তিম চাঁদ দেখা গেলেও অতটা উজ্জ্বল চাঁদের দেখা নাও মিলতে পারে। মহাকাশ বিজ্ঞানীদের পক্ষ থেকে উজ্জ্বল চাঁদ দেখার ক্ষেত্রে চশমা ব্যবহার করার কথা জানিয়েছেন।

এদিকে, এই ঐতিহাসিক ঘটনার সাক্ষী হতে ইতোমধ্যেই অনেক দেশের মহাকাশ বিষয়ক সংস্থাগুলো জনসাধারণের জন্য এই রক্তিম চাঁদ দেখার আয়োজন করছে। নিউইয়র্কের ইন্টারপিড জাদুঘর থেকে হাডসন নদীর ধার থেকে চাঁদ দেখার বন্দোবস্ত করা হয়েছে। নদীর ধারে রাখা থাকবে শক্তিশালী টেলিস্কোপ, যা দিয়ে চাঁদের শরীর স্পষ্ট দেখা যাবে। পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের দিল্লিতেও একই ব্যবস্থা করা হয়েছে।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/ডেস্ক/এসবি

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত