সর্বশেষ

  ছাতকে পুলিশের অভিযানে গাঁজাসহ আটক ১   শ্রীমঙ্গল বিজিবি’র বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি উদ্বোধন   মুক্তিযোদ্ধারা হচ্ছেন জাতির সূর্যসন্তান : শফিক চৌধুরী   বিয়ানীবাজার পৌর মেয়রের বাজেটে বড় চমক : সাড়ে ৪৬ কোটি টাকার বাজেটে উন্নয়ন ব্যয় ৯১ শতাংশের বেশি   দিরাইয়ে যুব নারীদের হস্তশিল্প প্রশিক্ষণ কোর্স সম্পন্ন   ডিএনএ রিপোর্টে সত্যতা মেলেনি : আতিয়া মহলে নিহতদের মধ্যে নেই জঙ্গি মুসা   বাহুবলে অবৈধ স্পিরিট বিক্রি করায় দুই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা   ছাতকে ১৬টি বিষধর সাপ আটক   সিলেট-ঢাকা মহাসড়কে হাইওয়ে পুলিশের অসহনীয় চাঁদাবাজী   যাকাতের অর্থ আয়বর্ধক কাজে ব্যয় করতে হবে: রাহাত আনোয়ার   বজ্রপাতের কারণে পার্বত্য চট্টগ্রামে পাহাড় ধস   কমলগঞ্জে সংসদ সদস্য’র ঐচ্ছিক তহবিলের টাকা বিতরণ   এপেক্সিয়ান চন্দন দাসের মায়ের মৃত্যুতে সাবেক মেয়র কামরানের শোক   মওদুদের জন্য খাট পাঠাতে চান নাসিম   মসজিদ আল হারামে শবে কদরের রাতে ২০ লাখের বেশি মানুষ মোনাজাতে শরীক   পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের শুভেচ্ছা   জ্যেষ্ঠ সাংসদদের পাশে পাচ্ছেন অর্থমন্ত্রী   গাজীপুরে ট্রাকের ধাক্কায় ১ জনের মৃত্যু   গ্রামীনফোন’র ঈদ আয়োজনে আয়নাবাজি : ৪টি চ্যানেল, ২০টি নাটক   বৃষ্টির দিনে যেমন পোশাক

অবশেষে স্থাপিত হলো দৃষ্টিহীন সুরঞ্জনের স্বপ্নের দোকান

প্রকাশিত : ২০১৫-০৯-০২ ২২:২১:০৫

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : বুধবার, ২ সেপ্টেম্বর ২০১৫ : ॥ সুরঞ্জন সরকার (২৬)। সে দৃষ্টিহীনহলেও তার স্বপ্ন দোকান প্রতিষ্ঠা করা। এ দোকানের আয়ে সে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করবে। কিন্তু দোকান দেওয়ার মতো টাকা তার কাছে নেই। কি করবে ভেবে পাচ্ছিল না। খুব কষ্ট করে দুই হাজার টাকা জমা করে। কিন্ত এ টাকায় দোকান ঘর নির্মাণ করা কঠিন হয়ে পড়ে। তার স্বপ্ন যেন বাস্তবে রুপ নিচ্ছে না। তারপরও হাল ছাড়েনি। মনের শক্তি দিয়ে উপায় বের করতে মরিয়া সুরঞ্জন।

এ স্বপ্ন বাস্তবায়নে একদিন সে সিদ্ধান্ত নেয় হবিগঞ্জ-সিলেট জেলার সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরীর কাছে যাবে। এ সিদ্ধান্তে সে দেখা করে তার এ স্বপ্নের কথা খুলে বলে। তিনি তাকে আর্থিক অনুদান দিয়ে দোকান নির্মাণ করার কথা বলেন।বাস্তবেও তিনি তাকে ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ দেন। এ টাকায় সে দোকান নির্মাণ করে।
 
সরেজমিন পরিদর্শনে গেলে আলাপকালে হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল উপজেলার শংকরপুর গ্রামের বাসিন্দা রবি সরকারের ছেলে সুরঞ্জন সরকার এসব কথা এ প্রতিবেদকের কাছে প্রকাশ করে। 

বর্তমানে তার দোকান থেকে গ্রামবাসী মুদিমাল ক্রয় করে নিচ্ছে। পুরোদমে চলছে তার দোকান। আশ্চার্য্য সে চোখে না দেখলেও মনের শক্তি দিয়ে মুদিমাল পাল্লায় ওজন করে বিক্রি করছে। পণ্যমূল্য নেয়ার বেলা সে বিশ্বাস করে লোকজনকে। তার বিশ্বাসের মর্যাদা দিতে পণ্য ক্রয় করে লোকেরা হিসাব করে টাকা দিয়ে থাকেন।

দোকান দেয়ায় অবশেষে তার স্বপ্ন বাস্তবায়ন হয়েছে। নিজ বাড়ির সামনে স্থাপিত দোকানে বসে সে ব্যবসা করে যাচ্ছে।  এতে তার আনন্দের শেষ নেই। এ কথা লিখে শেষ করার নয়। তার আনন্দ উপভোগ করতে ঘটনাস্থলে আসতে হবে। তাতে অনুভব করা যাবে।

দোকানে ডাল ক্রয় করতে আসা সবুজ মিয়া বলেন- সুরঞ্জন সৎভাবে ব্যবসা করছে। তার কাছ থেকে সূলভমূল্যে পণ্য ক্রয় করে নিতে পারছি। আমরাও পণ্য ক্রয় করে নিয়ে তার প্রাপ্য মূল্য পরিশোধ করে দিচ্ছি।

আলাপকালে সুরঞ্জন জানায়, তার পরিবারে ভাই,বোন, মা, স্ত্রী, সন্তান রয়েছে। সে এক সময় ঘালমুড়ি বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করেছে। দৃষ্টিহীন হওয়ায় তার পক্ষে ঘুরেফিরে ঝালমুড়ি বিক্রি করা কঠিন ছিল। তাই সে স্বপ্ন দেখেছিল বসে ব্যবসা করার। আর বাস্তবেই তার স্বপ্ন পূরণ হলো।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/প্রতিনিধি/টিআই-আর

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত