সর্বশেষ

  মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটিতে আত্মপ্রকাশ করলো ‘হাত বাড়াও’   ছাতকে সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার   মাদক ব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগে ছাতকে ভাই-বোনসহ আটক ৩   ছাতকে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১৫   বিশ্বভারতীতে শেখ হাসিনার জন্য প্রস্তুত উপহারের ডালি   সুধীজনদের মিলনমেলায় সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের ইফতার মাহফিল সম্পন্ন   শাবিতে কর্মচারীকে বেধড়ক পিটুনী   বাহুবলে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে কৃষকের মৃত্যু   বিদ্রোহী কমিটি গঠন নিয়ে সিলেট জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের বিবৃতি   মিসবাহ সিরাজকে শুভেচ্ছা জানালেন নবগঠিত সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতৃবৃন্দ   জমির উদ্দিন ভুলাই মেম্বারের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও ইফতার মাহফিল   বিশ্বনাথের দিঘলীতে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্রের নির্মাণ কাজ শুরু   রোহিঙ্গা শিশুদের সঙ্গে গল্প-খুনসুটিতে প্রিয়াংকা চোপড়া   ওসমানীতে ২ কোটি টাকার বিদেশি মুদ্রাসহ আটক ১   রাজনগরে ভাইয়ের হামলায় আহত ভাইয়ের মৃত্যু   বনানীতে সমাহিত করা হবে তাজিন আহমেদকে   প্রকৌশলী আব্দুল কাদিরকে সংবর্ধনা   ফের সন্ত্রাসী সংগঠনের আখ্যা পেল বিএনপি   কুলাউড়ায় অগ্নিকাণ্ডে প্রায় ২০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি   ‘ঈদের আগে জকিগঞ্জ-সিলেট সড়কের সংস্কার কাজ শেষ করতে হবে’

রাজনগরে মাছ ধরতে নদীতে বাঁশের বেড়া, পানি চলাচলে বাধা

প্রকাশিত : ২০১৭-১০-৩০ ০১:২৭:৫৪

শেখ মোজাহিদুল ইসলাম, রাজনগর : সোমবার, ৩০ অক্টোবর ২০১৭ ॥ মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার আখালি নদী ও মাছুগাং নদীতে অবৈধভাবে বাঁশের বেড়া দিয়ে চলছে মাছ শিকার। এ দুই নদীর ৮ পয়েন্টে দীর্ঘদিন থেকে বেআইনিভাবে বেড়া দিয়ে মাছ শিকার করা হলেও মৎস্য বিভাগ ও উপজেলা প্রশাসন এব্যাপারে নিরব। বেড়ার কারণে নদীর উজানে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। স্বাভাবিক পানি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, টেংরা ইউনিয়নের পাহাড়ি এলাকা থেকে জন্ম নেয়া আখালি নদী কাউয়াদীঘি হাওর হয়ে কুশিয়ারা নদীতে মিশেছে। ওই নদীর রাজনগর-কর্নিগ্রাম সড়কের কর্নিগ্রাম এলাকায় বাঁশের বেড়া দেওয়া হয়েছে। সড়ক থেকে উত্তর পাশে ৭০-৮০ ফুট দূরে নদী। নদীর এপার ওপার জুড়ে বাঁশের বেড়া। নদীতে এ বেড়াটি সদর ইউনিয়নের সদস্য আব্দুর রকিব দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয় কয়েকজন।

এ বেড়ার উজান ও ভাটিতে আরো কয়েকটি পয়েন্টে ৪-৫টি বেড়া রয়েছে। এছাড়াও উপজেলা খাদ্য গোদামের দক্ষিণ পাশে মাছুগাং-এ পদিনাপুর গ্রামের বিএনপি নেতা ছুরুক আহমদ বেড়া দিয়েছেন। ওই নদীর উজান ও ভাটিতে আরো ৪টি বেড়া রয়েছে। তবে সড়কের পাশে হওয়ায় যাতায়াতের সময় কর্ণিগ্রামের ও খাদ্য গোদামের পাশের দুটি বেড়া চোখে পড়ে। ব

র্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানি এ দুটি নদী দিয়েই কাউয়াদীঘি হাওরে যায়। কিন্তু  এসব বেড়ার কারণে হাওরে দ্রুত পানি নামছে না। উজানে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে অনেকসময় তলিয়ে যায় ফসল।

অপরদিকে বেড়ার কারণে মাছের অবাধ যাতায়াত বাঁধাগ্রস্ত হচ্ছে। মৎস্য আইনে নদীতে বেড়া দিয়ে মাছ শিকার অবৈধ। কিন্তু উপজেলা মৎস্য বিভাগ ও উপজেলা প্রশাসন এব্যাপারে কোন উদ্যোগই নিচ্ছে না। ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন কৃষক।

স্থানীয় লোকজনের ভাষ্যমতে, কর্নিগ্রামের আব্দুর রকিবসহ কয়েকজন মাছ ধরার জন্য এই বাঁশের বেড়া দিয়েছেন। আব্দুর রকিব বেড়া দেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন- ‘এভাবে আরো অনেক বেড়া রয়েছে। সবটাই কি অবৈধ ? এলাকার গরীবমানুষ বেড়া দিয়েছে। প্রশাসন ব্যবস্থা নিলে আমি সহযাগিতা করবো।’ বিএনপি নেতা ছুরুক আহমদ বলেন, এটি কিভাবে অবৈধ হয়। সারাজীবন ধরে এভাবে দেয়া হয়েচ্ছে। আমি একা নই।’

রাজনগর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ফণী ভূষণ দেব বলেন, এভাবে বেড়া দিয়ে মাছ ধরা অবৈধ। আমি বিষয়টির খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।’

রাজনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৌহিদুজ্জামান পাভেল বলেন ‘খোঁজ নিয়ে বেড়া অপসারণ ও বেড়া প্রদানকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/এসএমআই/টিআই-আর

সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত