সর্বশেষ

  হাওরবাসীর দুর্যোগ নিয়ে তামাশা করবেন না   “আমি একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, আমার কোন চাওয়া পাওয়া নেই”   গোলাপগঞ্জে বিদ্যুতায়িত হয়ে শিক্ষার্থীর মৃত্যু   রশিদিয়া দাখিল মাদরাসায় বিশ্ব বই দিবস উদযাপন   এনইইউবিতে ‘ক্যারিয়ার ক্লাব’র যাত্রা শুরু   ধর্মপাশা সদর ইউনিয়নের বাজেট ঘোষণা   জামালগঞ্জে এক কিশোরীর দুই জন্ম নিবন্ধন: বাল্যবিবাহ সম্পন্ন, এলাকায় তোলপাড়   বিশ্বনাথে ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ৩২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে র‌্যালী   কাউন্সিলর আফতাবকে ৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের সংর্বধনা   সব চেষ্টা ব্যর্থ, তলিয়ে গেল শনি: হাওরপাড়ে চলছে কৃষকের আহাজারি   হাওরের ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার পাবে মাসে ৩০ কেজি চাল ও নগদ অর্থ   মহাজনী ও এনজিও ঋনের চাপ: সব হারিয়ে দিশেহারা হাওরবাসী   বাবাকে ছাপিয়ে যেতে চান টাইগার শ্রফ   বাজারে আসুসের তিন জেনফোন   সুনামগঞ্জে শনির হাওরের বাঁধে ৩টি স্থানে ভাঙন   মহামতি লেনিনের জন্মবার্ষিকীতে সিলেটে লাল পতাকা মিছিল   ফ্রান্সে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে   লাখাইয়ে দেশীয় অস্ত্রসহ ৩ ডাকাত গ্রেফতার   আত্মসমর্পণ করে জামিন পেলেন তারেকের শাশুড়ি সিলেটের সৈয়দা ইকবাল মান্দ বানু   শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি হয়েছে : সিলেটে খাদ্যমন্ত্রী

‘আমি তোমার ছেলে’ বাবা....নীল কষ্টে কাতর মহসিন কন্যা

প্রকাশিত : ২০১৫-০৯-২০ ১৯:২২:২৯

উত্তরপূর্ব ডেস্ক : রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৫ ॥ তিন বোনের মধ্যে সবার ছোট আমি। কিন্তু বাবা বলতেন আমি নাকি উনার ছেলে। সবার সাথে আমাকে মেয়ে না বলে ছেলে হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিতেন। অনেক দায়িত্ব আমাকে পালন করতে বলতেন। যেমন, পারিবারিক বিভিন্ন অনুষ্ঠান, দেশব্যাপী সাড়া জাগানো বোনের বিয়ে, দেশ-বিদেশে বাবা-মা ও পরিবারের সদস্যদের চিকিৎসা, বাবার সামাজিক ও রাজনৈতিক কাজ, পারিবারিক ব্যবসাসহ অনেক কিছুই আমাকে করতে হতো।

সর্বশেষ বাবা অসুস্হ হলে আমি বাবাকে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাই এবং সার্বক্ষণিক বাবার পাশে থেকে চিকিৎসাসহ সকল বিষয় দেখাশোনা করি। বাবা ধীরে ধীরে সুস্হ হয়ে ICU থেকে CCU তে স্হানান্তরিত হয়েছিলেন। নিজের খাবার নিজেই খেতে পারছিলেন। ডাক্তারদের অনেক অাশাবাদী করে তুলেছিলেন।
অাসল ঠিকানায় যাওয়ার অাগেরদিন অামাকে বলেন, "তুমি অামাকে ভালবাসনা?"
অামি বলি, "বাবা, অনেক ভালবাসি তোমাকে। অনেক, অনেক, অনেক।"
বলল, "তাহলে অামাকে দেশে নিয়ে যাও। সেখানে প্রিয় মানুষদের কাছে গেলেই অামি সুস্হ হয়ে যাব। এদেশের স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকারদের শেষ না করে অামি পৃথিবী ছেড়ে যাবনা।"
একজন রণাঙ্গনের সম্মুখ সৈনিক হিসেবে বাবার স্বপ্ন ছিল এদেশ একদিন স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকার মুক্ত হবে। উড়বেনা আর তাদের গাড়ীতে লাখো প্রাণের বিনিময়ে অর্জিত জাতীয় পতাকা।
চেয়েছিলেন দেশে ফিরেই পবিত্র হজ্জ্বে যাবেন। প্রিয় মক্কা আর প্রিয় নবীর রওজা থেকে ফিরেই bastobaion korben সমাজকল্যাণের নতুন নতুন পরিকল্পনা। কিন্তু প্রকৃতির নিয়মে বাবাকে মহান আল্লাহ্ তায়ালা নিয়ে গেলেন, আল্লাহর প্রয়োজনে আরও বড় কোন পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করার জন্য। আমি পারলামনা পূর্বের মত বাবাকে সুস্হ অবস্হায় ফিরিয়ে আনতে।

না বাবা, আমি কিন্তু হারিনি। তুমিতো আল্লাহর কাছেই গিয়েছো। আমি ফিরে এসেছি তোমার স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে, তোমার প্রিয় ভালবাসার মানুষগুলোর কাছে। তোমার মতই নিজেকে উৎসর্গ করব তাদের কল্যাণে।
তোমার প্রিয় নেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে সান্ত্বনা দিয়ে বলেছেন, "তুমিতো বাবা হারিয়েছ। আর আমি হারিয়েছি আমার এক সৎ সাহসী মুজিবসেনাকে, যিনি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পৃষ্ঠপোষক ও আমার পাহারাদার।"

আমিও কথা দিলাম তোমাকে বাবা, তোমার শেখানো মানবপ্রেম ও দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে, একজন মুজিবসেনা হয়ে তোমার প্রিয় নেত্রীর পাহারাদার হব। জনকল্যাণে নিজেকে উৎসর্গ করে সত্যিই আমি প্রমাণ করব ‘আমি তোমার ছেলে’। আমি জানি, তাতেই তোমার আত্মা শান্তি পাবে। আর আমাকে শক্তি জোগাবে তোমার সারা জীবনের অর্জন সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মান আর কোটি মানুষের চোখের জল।

ভালো থেকো বাবা। অনেক ভাল। কারণ তোমার অনেক প্রিয় আদর্শের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু আর শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধারাতো এখন তোমার কাছেই আছে। যাদের জন্য তুমি নিয়মিতই চোখের জল ফেলতে। আমি জানি বাবা, তুমি বেহেশতে তাদেরই খুঁজে ফিরবে।

সেখানেও তুমি নিজেকে বিলিয়ে দিবে বাবা.. বাবাগো..

--সৈয়দা সাবরিনা শারমিন
(সদ্য প্রয়াত সমাজকল্যাণ মন্ত্রী সৈয়দ মহসীন আলীর ছোট মেয়ে)

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/এফবি/এমওআর

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত