সর্বশেষ

  মিঠু ব্যাংকার হতে চায়   আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলা : মুফতি হান্নানের মৃত্যুদণ্ডের চূড়ান্ত রায় প্রকাশ   ওসমানীনগরে যুবকের আত্মহত্যা   চলে গেলেন প্রখ্যাত অভিনেত্রী গীতা সেন   সিলেট সোসিও ইকোনোমিক ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন কমিটি পুনর্গঠন   ফেঞ্চুগঞ্জে নবগঠিত উপজেলা ছাত্রলীগ দু’টি ধারায় বিভক্ত   ধর্মপাশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স : লোকবল ও যন্ত্রপাতির অভাবে চিকিৎসাসেবা ব্যাহত   আদালতে জাকারবার্গ, অস্বীকার করলেন অভিযোগ   সাক্ষী না আসায় পেছালো কিবরিয়া হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ   শ্রীমঙ্গলে তক্ষক পাচারকারী চক্রকে কারাদণ্ডসহ জরিমানা   কাদের সিদ্দিকীর আপিল খারিজ : বাধা নেই উপনির্বাচনে   বালাগঞ্জ উপজেলায় অ্যাক্রোবেটিক প্রদর্শনী আজ   সিলেট জেলা পরিষদের নির্বাচিত সদস্যদের শপথ গ্রহণ   হবিগঞ্জে ডিজিটাল মেলার প্রতি তরুণ প্রজন্মকে আকৃষ্ট করতে হবে : জেলা প্রশাসক সাবিনা   ডব্লিউইএফের সভায় প্রধানমন্ত্রী   হবিগঞ্জে বর্ণিল আলোয় উদ্বোধন হল অস্কার এমপি আবু জাহির টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট   ‘মতিউর রহমান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছেন’   হাওর অঞ্চলের শিক্ষকদেরকে আরো দায়িত্বশীল ও সচেতন হতে হবে : জেলা প্রশাসক   কাউন্সিলর আজাদ কাপ ফুটসালের মঙ্গলবারের ৬টি খেলা সম্পন্ন   রিকাবীবাজারে বৃহৎ পানির স্তরের সন্ধান

অ্যালপাসো কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন আরো ১২ বাংলাদেশী

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-১৮ ২২:০৮:৩৯

প্রতীকি ছবি

নিউইয়র্ক থেকে এনা : বুধবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৫ ॥ টেক্সাসের অ্যালপাসোর ডিটেনশন সেন্টার থেকে আরো ৯ জন বাংলাদেশী মুক্তি পেয়েছেন। গত সপ্তাহে তাদের মুক্তি দেয়া হয়। গত ১৭ নভেম্বর ১ জন এবং ১৮ নভেম্বর আরো ২ জন বাংলাদেশীকে মুক্তি দেয়া হয়। তাদের প্রয়োজনী কাজপত্রের কাজ ইতিমধ্যেই শেষ হয়েছে। টেক্সাসের অ্যালপাসো কারাগারে ৪৮ জন বাংলাদেশী মুক্তির জন্য অনশনে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ওয়াশিংটন বাংলাদেশ দূতাবাসের এক শীর্ষ কর্মকর্তা তাদের অনশন ভঙ্গ করান। শর্ত থাকে তাদের পর্যায়ক্রমে প্যারোলে মুক্তি দেয়া হবে।

ড্রামের কর্মকর্তরা কাজী ফৌজিয়া এনাকে জানান- অনশন শেষে প্রথমেই অক্টোবর মাসে ১৬ জন বাংলাদেশীকে মুক্তি দেয়া হয়। এরপর বেশ কিছুদিন কাউকে মুক্তি দেয়া হয়নি। নভেম্বর মাসে দ্বিতীয় সপ্তাহে প্রথমে ৯ জনকে মুক্তি দেয়া হয়, ১৭ নভেম্বর মুক্তি দেয়া ১ জনকে এবং ১৮ নভেম্বর মুক্তি দেয়া হবে আরো ২ জনকে। সবমিলিয়ে ৪২ জন বাংলাদেশীর মধ্যে ২৮ জন বাংলাদেশীকে মুক্তি দেয়া হলো। এই মুক্তি প্রক্রিয়ায় কাজ করছে ড্রামসহ আরো কয়েকটি মূলধারার মানবাধিকার সংগঠন।

কাজী ফৌজিয়া আরো জানান- যারা মুক্তি পেয়েছেন তাদের প্রায় সকলেই নিউইয়র্ক এসে পৌঁছেছেন। গত সপ্তাহে যারা মুক্তি পেয়েছেন তাদের মধ্যে ৯ জন ইতিমধ্যেই নিউইয়র্ক এসেছেন। এদের টিকেটের টিকেট দিচ্ছেন মুক্তিপ্রাপ্তদের আত্মীয়-স্বজনরা। আর যাদের আত্মীয়-স্বজন পাওয়া যাচ্ছে না তাদের টিকেটের ব্যবস্থা করছেন বাংলাদেশ সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম হাওলাদার ও কাজী ফৌজিয়া। তারা নিজেরা সহযোগিতা করছেন এবং মানুষে কাছ থেকে অর্থ নিচ্ছেন।

মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলাদেশীরা হচ্ছেন- দেলোয়ার হোসেন, এমডি আজগর আলী, কামরান আহমেদ, আব্দুল মান্নান, নূরুল আলম, সাব্বির আহমেদ, মোহাম্মদ নাজিম আহমেদ, ধনু মিয়া, আঙ্গসু দেব।

এছাড়াও মাসুদ রহমানকে ক্যালিফোর্নিয়া, আলআমিন হোসাইন, আমিনুল ইসলাম ও আবুল কাশেমকে মায়ামি ডিটেনশন সেন্টারে স্থানান্তির করা হয়েছে।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/এ/টিআই-আর

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত