সর্বশেষ

  একটি শিশুকে ঘিরে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ও উৎসুক জনতা   বাবুল আখতার স্মরণে আরামবাগ ব্লক আওয়ামী লীগের দোয়া মাহফিল   ‘অভিযাত্রী’ শায়েস্তাগঞ্জ শাখার আত্মপ্রকাশে শিশু-কিশোরদের মাঝে শিক্ষাউপকরণ বিতরণ   প্রবাসীরা অসহায় মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন   মলাটের যাত্রা শুরু   আজ সুনামগঞ্জে দু’দিনের সফরে আসছেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম.এ মান্নান   শিক্ষকদের ন্যায্য দাবি আওয়ামী লীগ সরকার পূরণ করবে : কামরান   ছাতক পৌরসভায় ২৬ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে   দীর্ঘ ১৫ বছর পর আসছে ওসমানীনগর উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি   মেয়াদ পূর্ণ করে বিদায়, উপাচার্যবিহীন শাবি   ‘সরকারের পাশাপাশি, বিত্তশালী ও প্রবাসীরা বন্যার্তদের পাশে দাড়িয়ে মহত্বের স্বাক্ষর রেখেছেন’   দক্ষিণ সুরমায় ছাত্রলীগ নেতা ‘ফাহিম স্মৃতি পরিষদ’র অনুষ্ঠানে গোলাগুলি: আহত ২   সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড জনসম্মুখে তুলে ধরতে হবে: আশফাক আহমদ   সরকার হাওর-দুর্যোগ মোকাবেলা ও কৃষকের স্বপ্ন বাস্তবায়নে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ : ড. জয়া সেনগুপ্তা   সিলেট জেলা শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে অসুস্থ শফিউলকে অনুদান প্রদান   ফেঞ্চুগঞ্জে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের পুর্নবাসনে মানিকোনা উন্নয়ন সংস্থা ইউকে’র অনুদান প্রদান   চুনারুঘাটে সাপের কামড়ে যুবতীর মৃত্যু   বালাগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি গঠন   মাধবপুরে জাপার উপজেলা ও পৌর কমিটি অনুমোদন   সিলেটে ‘দ্যা সামিট অফ মেলোডি’ কনসার্টে মঞ্চ মাতালো অরফিয়াস ও ব্যান্ড 'লালন'

অ্যালপাসো কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন আরো ১২ বাংলাদেশী

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-১৮ ২২:০৮:৩৯

প্রতীকি ছবি

নিউইয়র্ক থেকে এনা : বুধবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৫ ॥ টেক্সাসের অ্যালপাসোর ডিটেনশন সেন্টার থেকে আরো ৯ জন বাংলাদেশী মুক্তি পেয়েছেন। গত সপ্তাহে তাদের মুক্তি দেয়া হয়। গত ১৭ নভেম্বর ১ জন এবং ১৮ নভেম্বর আরো ২ জন বাংলাদেশীকে মুক্তি দেয়া হয়। তাদের প্রয়োজনী কাজপত্রের কাজ ইতিমধ্যেই শেষ হয়েছে। টেক্সাসের অ্যালপাসো কারাগারে ৪৮ জন বাংলাদেশী মুক্তির জন্য অনশনে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ওয়াশিংটন বাংলাদেশ দূতাবাসের এক শীর্ষ কর্মকর্তা তাদের অনশন ভঙ্গ করান। শর্ত থাকে তাদের পর্যায়ক্রমে প্যারোলে মুক্তি দেয়া হবে।

ড্রামের কর্মকর্তরা কাজী ফৌজিয়া এনাকে জানান- অনশন শেষে প্রথমেই অক্টোবর মাসে ১৬ জন বাংলাদেশীকে মুক্তি দেয়া হয়। এরপর বেশ কিছুদিন কাউকে মুক্তি দেয়া হয়নি। নভেম্বর মাসে দ্বিতীয় সপ্তাহে প্রথমে ৯ জনকে মুক্তি দেয়া হয়, ১৭ নভেম্বর মুক্তি দেয়া ১ জনকে এবং ১৮ নভেম্বর মুক্তি দেয়া হবে আরো ২ জনকে। সবমিলিয়ে ৪২ জন বাংলাদেশীর মধ্যে ২৮ জন বাংলাদেশীকে মুক্তি দেয়া হলো। এই মুক্তি প্রক্রিয়ায় কাজ করছে ড্রামসহ আরো কয়েকটি মূলধারার মানবাধিকার সংগঠন।

কাজী ফৌজিয়া আরো জানান- যারা মুক্তি পেয়েছেন তাদের প্রায় সকলেই নিউইয়র্ক এসে পৌঁছেছেন। গত সপ্তাহে যারা মুক্তি পেয়েছেন তাদের মধ্যে ৯ জন ইতিমধ্যেই নিউইয়র্ক এসেছেন। এদের টিকেটের টিকেট দিচ্ছেন মুক্তিপ্রাপ্তদের আত্মীয়-স্বজনরা। আর যাদের আত্মীয়-স্বজন পাওয়া যাচ্ছে না তাদের টিকেটের ব্যবস্থা করছেন বাংলাদেশ সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম হাওলাদার ও কাজী ফৌজিয়া। তারা নিজেরা সহযোগিতা করছেন এবং মানুষে কাছ থেকে অর্থ নিচ্ছেন।

মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলাদেশীরা হচ্ছেন- দেলোয়ার হোসেন, এমডি আজগর আলী, কামরান আহমেদ, আব্দুল মান্নান, নূরুল আলম, সাব্বির আহমেদ, মোহাম্মদ নাজিম আহমেদ, ধনু মিয়া, আঙ্গসু দেব।

এছাড়াও মাসুদ রহমানকে ক্যালিফোর্নিয়া, আলআমিন হোসাইন, আমিনুল ইসলাম ও আবুল কাশেমকে মায়ামি ডিটেনশন সেন্টারে স্থানান্তির করা হয়েছে।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/এ/টিআই-আর

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত