সর্বশেষ

  খাদিমনগরের কালাগুলে সড়ক ও মাদ্রাসা ভবনের উদ্বোধন   সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের তপশীল ঘোষণা : নির্বাচন ১২ মে   সাংবাদিকতায় ‘ওয়াচডগ জার্নালিজম’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন তুহিন   ছাতক উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি অনুমোদন   ধান খাওয়াকে কেন্দ্র করে গোয়াইনঘাটে সংঘর্ষ : নিহত ১   “শেখ হাসিনার উন্নয়ন ব্যক্তি বিশেষের পকেট ভারীর জন্য নয়”   ফেঞ্চুগঞ্জে একই রাতে দুই বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি: ২০ লাখ টাকার মালামাল লুট   কবরস্থান রক্ষার দাবিতে যোগীরগাঁওয়ে মানববন্ধন : ১৫ দিনের আল্টিমেটাম   কানাইঘাটে ইফজালের বাড়ীতে শোকের মাতম : দাফন সম্পন্ন, গ্রেপ্তার ১   দিরাইয়ে মজনু মিয়া হত্যা : প্রধান আসামী ডনেল গ্রেফতার   তাহিরপুর উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি গঠন   বিশ্বনাথে পানির মধ্যে চলছে ‘বাসিয়া নদীতে’ পুনঃখনন কাজ   সদর উপজেলা স্পোর্টস একাডেমির অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত   ফেসবুকে গালিগালাজ: ফুলবাড়ী ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ   লন্ডনে আরিফ খান জয়ের ওপর বিএনপি নেতা-কর্মীদের হামলা   রাজনগরে ছেলের হাতে বাবা খুন: ছেলে আটক   বালাগঞ্জে ‘দেশরত্ন শেখ হাসিনা সেতু’র ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন দুই এমপি   কানাইঘাটে প্রবাসির বাড়ীতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি: গুলিতে নিহত ১   বরইকান্দিতে জোড়া খুনের মামলায় ৫২ জন জেলহাজতে   এশা ইস্যু : মুর্শেদাসহ ঢাবির ২৪ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

অ্যালপাসো কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন আরো ১২ বাংলাদেশী

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-১৮ ২২:০৮:৩৯

নিউইয়র্ক থেকে এনা : বুধবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৫ ॥ টেক্সাসের অ্যালপাসোর ডিটেনশন সেন্টার থেকে আরো ৯ জন বাংলাদেশী মুক্তি পেয়েছেন। গত সপ্তাহে তাদের মুক্তি দেয়া হয়। গত ১৭ নভেম্বর ১ জন এবং ১৮ নভেম্বর আরো ২ জন বাংলাদেশীকে মুক্তি দেয়া হয়। তাদের প্রয়োজনী কাজপত্রের কাজ ইতিমধ্যেই শেষ হয়েছে। টেক্সাসের অ্যালপাসো কারাগারে ৪৮ জন বাংলাদেশী মুক্তির জন্য অনশনে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ওয়াশিংটন বাংলাদেশ দূতাবাসের এক শীর্ষ কর্মকর্তা তাদের অনশন ভঙ্গ করান। শর্ত থাকে তাদের পর্যায়ক্রমে প্যারোলে মুক্তি দেয়া হবে।

ড্রামের কর্মকর্তরা কাজী ফৌজিয়া এনাকে জানান- অনশন শেষে প্রথমেই অক্টোবর মাসে ১৬ জন বাংলাদেশীকে মুক্তি দেয়া হয়। এরপর বেশ কিছুদিন কাউকে মুক্তি দেয়া হয়নি। নভেম্বর মাসে দ্বিতীয় সপ্তাহে প্রথমে ৯ জনকে মুক্তি দেয়া হয়, ১৭ নভেম্বর মুক্তি দেয়া ১ জনকে এবং ১৮ নভেম্বর মুক্তি দেয়া হবে আরো ২ জনকে। সবমিলিয়ে ৪২ জন বাংলাদেশীর মধ্যে ২৮ জন বাংলাদেশীকে মুক্তি দেয়া হলো। এই মুক্তি প্রক্রিয়ায় কাজ করছে ড্রামসহ আরো কয়েকটি মূলধারার মানবাধিকার সংগঠন।

কাজী ফৌজিয়া আরো জানান- যারা মুক্তি পেয়েছেন তাদের প্রায় সকলেই নিউইয়র্ক এসে পৌঁছেছেন। গত সপ্তাহে যারা মুক্তি পেয়েছেন তাদের মধ্যে ৯ জন ইতিমধ্যেই নিউইয়র্ক এসেছেন। এদের টিকেটের টিকেট দিচ্ছেন মুক্তিপ্রাপ্তদের আত্মীয়-স্বজনরা। আর যাদের আত্মীয়-স্বজন পাওয়া যাচ্ছে না তাদের টিকেটের ব্যবস্থা করছেন বাংলাদেশ সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম হাওলাদার ও কাজী ফৌজিয়া। তারা নিজেরা সহযোগিতা করছেন এবং মানুষে কাছ থেকে অর্থ নিচ্ছেন।

মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলাদেশীরা হচ্ছেন- দেলোয়ার হোসেন, এমডি আজগর আলী, কামরান আহমেদ, আব্দুল মান্নান, নূরুল আলম, সাব্বির আহমেদ, মোহাম্মদ নাজিম আহমেদ, ধনু মিয়া, আঙ্গসু দেব।

এছাড়াও মাসুদ রহমানকে ক্যালিফোর্নিয়া, আলআমিন হোসাইন, আমিনুল ইসলাম ও আবুল কাশেমকে মায়ামি ডিটেনশন সেন্টারে স্থানান্তির করা হয়েছে।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/এ/টিআই-আর

সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত