সর্বশেষ

  প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন আল্লামা বরকতপুরী আর নেই   সিলেট বিভাগের প্রথম দুই শহীদের কবরে শ্রদ্ধাঞ্জলি   ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের শ্রদ্ধাঞ্জলি   সিলেট মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ   দিরাইয়ে যথাযোগ্য মর্যাদায় বিজয় দিবস উদযাপন   “দেশের উন্নয়নে আলেম-উলামাসহ সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যেতে হবে”   আফসর খান রাত্রিকালিন মিনি ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন   বিজয় দিবসে সিলেট মহানগর যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলি   বিজয়ানন্দে রঙিন সিলেট: শ্রদ্ধাভরে বীর শহীদদের স্মরণ   শাবিতে ৭ম ব্যাচের পুনর্মিলনী ২২ ডিসেম্বর   চৌধুরী মইনুদ্দিনকে দেশে ফিরিয়ে নিয়ে ফাঁসি কার্যকরের দাবি   সহকারি শিক্ষক সমিতির সংবাদ সম্মেলন: বেতন স্কেল নির্ধারণের দাবি   শায়েস্তাগঞ্জে দুই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের প্রার্থীদের প্রচারণা তুঙ্গে   বঙ্গবন্ধু কন্যা ভাতের বদলে আলু খাওয়াবেন না : এমপি মানিক   বিশ্বম্ভরপুরের রাজাপাড়া স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তপক অর্পণ   জকিগঞ্জে শিক্ষার্থীর অসুস্থ বাবার চিকিৎসার খবর নিলেন হুইপ সেলিম   এসপি হিসেবে পদোন্নতি পেলেন সিলেটের সুনন্দা রায়   বিশ্বনাথ থেকে ৪ অস্ত্র ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার   আজ মহান বিজয় দিবস   দণ্ডিত রাগীব আলীর বন্দনায় পিপি মিসবাহ!

অ্যালপাসো কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন আরো ১২ বাংলাদেশী

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-১৮ ২২:০৮:৩৯

নিউইয়র্ক থেকে এনা : বুধবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৫ ॥ টেক্সাসের অ্যালপাসোর ডিটেনশন সেন্টার থেকে আরো ৯ জন বাংলাদেশী মুক্তি পেয়েছেন। গত সপ্তাহে তাদের মুক্তি দেয়া হয়। গত ১৭ নভেম্বর ১ জন এবং ১৮ নভেম্বর আরো ২ জন বাংলাদেশীকে মুক্তি দেয়া হয়। তাদের প্রয়োজনী কাজপত্রের কাজ ইতিমধ্যেই শেষ হয়েছে। টেক্সাসের অ্যালপাসো কারাগারে ৪৮ জন বাংলাদেশী মুক্তির জন্য অনশনে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ওয়াশিংটন বাংলাদেশ দূতাবাসের এক শীর্ষ কর্মকর্তা তাদের অনশন ভঙ্গ করান। শর্ত থাকে তাদের পর্যায়ক্রমে প্যারোলে মুক্তি দেয়া হবে।

ড্রামের কর্মকর্তরা কাজী ফৌজিয়া এনাকে জানান- অনশন শেষে প্রথমেই অক্টোবর মাসে ১৬ জন বাংলাদেশীকে মুক্তি দেয়া হয়। এরপর বেশ কিছুদিন কাউকে মুক্তি দেয়া হয়নি। নভেম্বর মাসে দ্বিতীয় সপ্তাহে প্রথমে ৯ জনকে মুক্তি দেয়া হয়, ১৭ নভেম্বর মুক্তি দেয়া ১ জনকে এবং ১৮ নভেম্বর মুক্তি দেয়া হবে আরো ২ জনকে। সবমিলিয়ে ৪২ জন বাংলাদেশীর মধ্যে ২৮ জন বাংলাদেশীকে মুক্তি দেয়া হলো। এই মুক্তি প্রক্রিয়ায় কাজ করছে ড্রামসহ আরো কয়েকটি মূলধারার মানবাধিকার সংগঠন।

কাজী ফৌজিয়া আরো জানান- যারা মুক্তি পেয়েছেন তাদের প্রায় সকলেই নিউইয়র্ক এসে পৌঁছেছেন। গত সপ্তাহে যারা মুক্তি পেয়েছেন তাদের মধ্যে ৯ জন ইতিমধ্যেই নিউইয়র্ক এসেছেন। এদের টিকেটের টিকেট দিচ্ছেন মুক্তিপ্রাপ্তদের আত্মীয়-স্বজনরা। আর যাদের আত্মীয়-স্বজন পাওয়া যাচ্ছে না তাদের টিকেটের ব্যবস্থা করছেন বাংলাদেশ সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম হাওলাদার ও কাজী ফৌজিয়া। তারা নিজেরা সহযোগিতা করছেন এবং মানুষে কাছ থেকে অর্থ নিচ্ছেন।

মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলাদেশীরা হচ্ছেন- দেলোয়ার হোসেন, এমডি আজগর আলী, কামরান আহমেদ, আব্দুল মান্নান, নূরুল আলম, সাব্বির আহমেদ, মোহাম্মদ নাজিম আহমেদ, ধনু মিয়া, আঙ্গসু দেব।

এছাড়াও মাসুদ রহমানকে ক্যালিফোর্নিয়া, আলআমিন হোসাইন, আমিনুল ইসলাম ও আবুল কাশেমকে মায়ামি ডিটেনশন সেন্টারে স্থানান্তির করা হয়েছে।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/এ/টিআই-আর

সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত