সর্বশেষ

  বিয়ানীবাজার পৌরসভায় কাউন্সিলর পদে কে কতো ভোট পেয়ে নির্বাচিত হলেন   শাবিতে সাংবাদিক পেটানোর ঘটনায় সপ্তাহব্যাপী গণস্বাক্ষর কর্মসূচি সমাপ্ত   মাধবপুরে দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত   ফেঞ্চুগঞ্জে কুশিয়ারা নদীতে ভাসছে লাশ   কুলাউড়ার চাতলাপুর চা বাগানে নারী শ্রমিকদের কর্মবিরতি অব্যাহত : যোগ দিলেন পুরুষ শ্রমিকরাও   কেন বাংলাদেশে আসছে না পাকিস্তান?   গণভবনে হাসিনার সাথে ডেভিড ক্যামেরনের সাক্ষাৎ   শনিবার সুনামগঞ্জ আসছেন ওয়ার্কার্স পার্টি ও যুব মৈত্রীর কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ   হিমালয়ে নিখোঁজ পবর্তারোহীকে ৪৭ দিন পর উদ্ধার   সিলেট মহানগর বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে রয়েছেন যারা   মদনমোহন কলেজে ডিগ্রি (পাস) কোর্সে রিলিজস্লিপে ভর্তির শেষ তারিখ ৩০ এপ্রিল   চাপাইনবাবগঞ্জে জঙ্গিদের আত্মসমর্পণের জন্য শেষ আহ্বান   চলে গেলেন অভিনেতা বিনোদ খান্না   শ্রীমঙ্গলে র‌্যাবের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত   কানাইঘাট ডিগ্রি কলেজ জাতীয়করণে এলাকাবাসীর মধ্যে আনন্দের বন্যা   দক্ষিণ সুনামগঞ্জে শিক্ষা বিষয়ক গেøাবাল অ্যাকশন র‌্যালি শেষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত   শায়েস্তাগঞ্জসহ ৬ পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের একঘণ্টা কর্মবিরতি   ছাতকে ব্যবসায়ীদের নিয়ে কাস্টম্স বিভাগের কর্মশালা সম্পন্ন   মোল্লারগাঁও ইউপি ৩নং ওয়ার্ড তালামীযের মতবিনিময় সভা   আব্দুস সামাদ আজাদের ১২তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

‘নিরাপদেই’ আছেন প্যারিসে বাংলাদেশিরা

প্রকাশিত : ২০১৫-১১-১৪ ২৩:২৪:৩৭

উত্তরপূর্ব ডেস্ক : শনিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৫ ॥ প্যারিস শহরের কয়েকটি স্থানে বোমা হামলা ও বন্দুকধারীদের গুলিতে প্রায় দেড় শতাধিক নিহত হয়েছেন, আহতের সংখ্যা আরো বেশি। তবে এখনো কোনো বাংলাদেশির হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

প্যারিসে বসবাসরত আব্দুল আজিজ নামে এক প্রবাসী ফেসবুকে বাংলামেইলকে জানান, এখানে বেশিরভাগ বাংলাদেশি রেস্টুরেন্টে কাজ করেন। তাদের গভীর রাত পর্যন্ত কাজ করতে হয়। বোমা হামলার ঘটনায় সবাই আতঙ্কিত হলেও নিরাপদেই আছেন। তবে হামলার কারণে অনেকেই বাসায় ফিরতে পারেননি। কর্মস্থলেই রয়ে গেছেন।

এ হামলার পর ফ্রান্সে বসবাসরত মুসলিমদের হয়রানি করা হতে পারে বলেও আশঙ্কা করেন আব্দুল আজিজ। তিনি জানান, হামলাটি মুসলিম জঙ্গিরাই ঘটিয়েছে বলে সবার ধারণা। তাই এরপর মুসলিমদের চলাফেরায় বেশ কঠিন হবে। নিরাপত্তা জোরদারের কারণে জিজ্ঞাসাবাদ, তল্লাশি করাও হতে পারে।

শুক্রবার রাতে প্যারিসের রেস্টুরেন্ট, বার এবং  কনসার্টসহ কমপক্ষে ছয়টি স্থানে বন্দুক ও বোমা হামলা চালায় সন্ত্রাসীরা। শহরের কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত বাটাক্লঁ কনসার্ট হলেই কমপক্ষে ১১২ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। ওই কনসার্টে হামলার আগে শতাধিক মানুষকে জিম্মি করেছিল বন্দুকধারীরা। পরে পুলিশি অভিযানে জিম্মি নাটকের অবসান ঘটে। এসময় চার হামলাকারীও নিহত হয়।

অন্য হামলাগুলো হয়েছে স্তাদে দে ফ্রান্স এবং কয়েকটি বার ও রেস্তোরাঁয়। এর মধ্যে স্টেডিয়ামের কাছের ঘটনাটি আত্মঘাতি বোমা হামলা বলে ধারণা করা হচ্ছে।

তাৎক্ষণিকভাবে কোনো গোষ্ঠী হামলার দায় স্বীকার করেনি। তবে এ হামলার জন্য ইসলামি সন্ত্রাসীদের সন্দেহ করা হচ্ছে। ফরাসি রেডিওতে এক প্রত্যক্ষদর্শী বলেছেন, বাটাক্লঁ কনসার্টে বন্দুকধারীরা ‘আল্লাহু আকবার’ বলে  হামলা চালিয়েছিল। ওই হামলায় একে রাইফেল ব্যবহার করা হয়েছিল যা সাধারণত জঙ্গিরাই ব্যবহার করে থাকে।

হামলার পর গোটা দেশ জুড়ে সতর্ক অবস্থা জারি করা হয়েছে। মোতায়েন করা হয়েছে হাজার হাজার সেনা পুলিশ। প্যারিসের বাসিন্দাদের ঘরে থাকারও অনুরোধ জানান হয়েছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামসহ বিশ্বের বিভিন্ন নেতারা এ হামলার ব্যাপক নিন্দা করেছেন।

উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/ডেস্ক/টিআই-আর

এ বিভাগের আরো খবর


সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত