সর্বশেষ

  মৌলভীবাজারে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে আটক ৩   সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুস সাত্তার আর নেই: এমপি মানিকের শোক   ছাতকে আওয়ামী লীগ নেত্রীর মাতৃ বিয়োগ : এমপিসহ বিভিন্ন মহলের শোক   বিশ্বনাথের খেলাফত মজলিসের ইফতার মাহফিল সম্পন্ন   বিশ্বনাথে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত ১   শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে আজ দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ :শফিক চৌধুরী   সুনামগঞ্জে বজ্রপাতে কৃষকের মৃত্যু   মাছ ধরতে গিয়ে বজ্রপাতে ৩ ভাইয়ের মৃত্যু   সিলেটে ছাত্রলীগ কর্মী মিন্নতের কব্জিকর্তন মামলার প্রধান আসামী শাহীনসহ গ্রেফতার ২   ছাতকে সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা দায়ের   কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ডি-লিট ডিগ্রি পেলেন শেখ হাসিনা   ছাতকে পৃথক সংঘর্ষে আহত ৫০, গ্রেফতার ১   জকিগঞ্জে ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার   এতিমদের নিয়ে ক্যাডেট কলেজ ক্লাব সিলেটের ইফতার মাহফিল   শাবিতে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ওয়েবসাইট উদ্বোধন   শাবির স্বপ্নোত্থানের ঈদবস্ত্র বিতরণ   সেই কলকাতাকে হারিয়ে ফাইনালে সাকিবদের হায়দরাবাদ   ‘আদর্শ সমাজ গঠনে রমজানের শিক্ষাকে কাজে লাগাতে হবে’   সাচনা বাজারে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত দোকানপাঠ পরিদর্শনে রঞ্জিত সরকার   জামালগঞ্জে আগুনে পুড়ে ছাই ৯ দোকান: দেড় কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি

লন্ডনে বিএনপির ‘সাম্প্রদায়িক স্লোগান’: প্রতিবাদে বিভিন্ন সংগঠনের সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত : ২০১৮-০৪-২৪ ১৭:০৫:১৭

মতিয়ার চৌধুরী, লন্ডন : মঙ্গলবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৮ ॥ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লন্ডন সফরকে কেন্দ্র করে ইউকে বিএনপির সরকার বিরোধী সমাবেশ থেকে সাম্প্রদায়িক স্লোগানের প্রতিবাদে ২৩ এপ্রিল বিকেলে লন্ডনে সংবাদ সম্মেলনে করেছে কয়েকটি সংগঠন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়- ২১শে এপ্রিল শনিবার লন্ডনের ওয়েস্টমিনিস্টারে সেন্ট্রাল হলে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে নাগরিক সংবর্ধনা দেওয়া হয়। সংবর্ধনা চলাকালীন সময়ে হলের উল্টোপাশের রাস্তায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল তাদের রাজনৈতিক কর্মসূচির অংশ হিসাবে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করে। যুক্তরাজ্য বিএনপির উক্ত প্রতিবাদ কর্মসূচির একটি ভিডিও আমাদের গোচরে আসে। যেখানে দেখা যায় যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি আব্দুল মালেকের নেতৃত্বে অত্যন্ত কুরুচিপূর্ণভাবে বাংলাদেশের সংখ্যালঘু হিন্দুদের দেবদেবীর নামের সাথে প্রধানমন্ত্রী এবং বঙ্গবন্ধুর নাম সংযোগ করে ধর্মীয় বিদ্বেষপূর্ণ সাম্প্রদায়িক স্লোগান দেওয়া হয়। তাদের স্লোগানের ভাষা ছিল এভাবে- ‘হরে কৃষ্ণ হরে রাম শেখ হাসিনার বাপের নাম।’  ‘নরেন্দ্র মোদির কোলে শেখ হাসিনা দূলে।’ ইত্যাদি। যা অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ এবং আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা পরিপন্থী। এধরণের সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক বিদ্বেষপূর্ণ স্লোগান বাংলাদেশে এবং বিলেতে বাঙালি কমিউনিটির ধর্মীয় সহাবস্থান এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বিরূপ প্রভাব বিস্তার সহ সংখ্যালঘু হিন্দুদের ধর্মীয় অনুভূতি চরমভাবে আহত হবে আশংকা করে- স্যাকুলার মুভমেন্ট বাংলাদেশ ইউকে এবং সিপিআরএমবি একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। এতে সংহতি জানায় যুক্তরাজ্য ভিত্তিক হিন্দু ধর্মীয় সংগঠন  এসবিএলএ ইউকে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন- এসবিএলএ ইউকে এর সভাপতি অজিত সাহা । বক্তব্যে বলা হয়- আমাদের মহান স্বাধীনতার অন্যতম স্তম্ভ হলো বাংলাদেশের অসাম্প্রদায়িক শক্তি। কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় যে বাংলাদেশের এই অসাম্প্রদায়িক শক্তিকে ধ্বংস করে দিতে সোচ্চার একটি চক্র ১৯৭১ সালে দেশজুড়ে স্বাধীনতার স্বপক্ষের সাধারণ জনতা এবং সংখ্যালঘুদের খুন, ধর্ষণ দখল করে ক্ষ্যান্ত হয়নি। ধীরে ধীরে তারা নানা পরিচয়ে শিকড় গজিয়েছে স্বাধীন বাংলাদেশের বুকে, যার ফলশ্রুতিতে আমরা দেখেছি ১৯৯১ সালে সারা বাংলাদেশ জুড়ে সংখ্যালঘু হামলা, দেশজুড়ে ২০০১ সালের নির্বাচন পরবর্তী সংখ্যালঘুদের উপর চরম নির্যাতন থেকে শুরু করে সাম্প্রতিককালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর, যশোরের অভয়নগর, মালোপাড়া, রংপুরের ঠাকুর পাড়াসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় সংখ্যালঘু হামলা এবং সাম্প্রতিক যুক্তরাজ্য বিএনপির এই বিদ্বেষপূর্ণ স্লোগান একই সূত্রে গাঁথা।
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়- গত ২১শে এপ্রিল যুক্তরাজ্য বিএনপির এমন হিন্দু ধর্ম অবমাননাকারী ধর্মীয় বিদ্বেষ ও ঘৃণাপূর্ণ স্লোগান বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক পরিস্থিতিকে উস্কে দিতে পারে। আমরা এও মনে করি এমন বিদ্বেষপূর্ণ স্লোগান সমাজে ঘৃণ্য সাম্প্রদায়িকতার বিষবাষ্প বিস্তারে প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। লিখিত বক্তব্যের এক পর্যায়ে বলা হয় আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের মূল লক্ষ্য ছিলো সব ধর্মের মানুষের সমঅধিকার এবং সহাবস্থান। যেখানে যার যার ধর্ম সে সে শান্তিমত পালন করবে। কিন্তু বাংলাদেশের একটি বড় রাজনৈতিক দলের এমন সাম্প্রদায়িক স্লোগান বাংলাদেশের এবং ইউকে বসবাসরত বাঙ্গালী সমাজের মধ্যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির জন্য ভয়াবহ এবং হুমকি স্বরূপ।

তারা বলেন- বাংলাদেশ জাতিয়তাবাদী দল দুইবার ক্ষমতায় থাকা বাংলাদেশের একটি প্রধান রাজনৈতিক দল। তাদের গঠনতন্ত্র মতেও কোন ধরনের বৈশম গ্রহণযোগ নয়। ইউকের আইন মতে ইহা একেবারই বেআইনি। বর্তমানে তাদের যুক্তরাজ্য ইউনিট একটি গুরুত্বপূর্ণ ইউনিট। তাদের বর্তমান দলীয় প্রধান যুক্তরাজ্যে অবস্থানের কারনে বাংলাদেশের রাজনীতিতে এর গুরুত্ব আরো বৃদ্ধি পেয়েছে বলেই ধারণা করা হয়। কিন্ত একটি প্রধান রাজনৈতিক দলের এমন গুরুত্বপূর্ণ ইউনিটের প্রধানের নেতৃত্বে এমন সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষপূর্ণ এবং সংখ্যালঘু হিন্দু ধর্মকে তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করে দেওয়া স্লোগান বাংলাদেশে ঘৃণ্য সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ ও ঘৃনা বিস্তারে ভূমিকা রাখবে। যা সম্পুর্ন অগ্রহণযোগ্য এবং হতাশাব্যঞ্জক। রাজনৈতিক কারণে ধর্ম ব্যবহার একদমই অগ্রহণযোগ্য এবং নিন্দনীয়।
লিখিত বক্তব্যের উপসংহারে যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি আব্দুল মালেকসহ সংশ্লিষ্ঠ সবাইকে অনতিবিলম্বে তাদের ঘৃণ্য সাম্প্রদায়িক স্লোগানের জন্য প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানানো হয়। অন্যতায়  ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে কমিউনিটির সকল শ্রেণী পেশার অসাম্প্রদায়িক জনগোষ্ঠীর সংশ্লিষ্টতায় সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ, ঘৃণা এবং তুচ্ছ তাচ্ছিল্যতাপূর্ন স্লোগানদাতা ও তাদের সংগঠনের বিরুদ্ধে আইনি আশ্রয় নিতে বাধ্য হবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- স্যাকুলার বাংলাদেশ মুভমেন্টে ইউজে’র  সভাপতি পুষ্পিতা গুপ্ত, সাধারণ সম্পাদক জেসমিন চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার প্রফেসর মেফতা  ইসলাম, এসবিএলএ ইউক এর সভাপতি অজিত সাহা, সাধারণ সম্পাদক অমিতোষ মজুমদার, সিআরএমবিসহ বিলেতে বাঙালি কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ।

সংবাদ সম্মেলনে একজন জামাতপন্থি সাংবাদিক আয়োজকদের প্রশ্ন করে বলেন- এটা নাকি বিএনপির দলীয় স্লোগান এবং বাংলাদেশে ক্ষমতাসীন সরকার যেখানে সন্ত্রাসের মদদ দিচ্চে সেখানে দেশের বাইরে এমন স্লোগানকে আয়োজকদের আমলে নেয়া কতটুকু যুক্তিসঙ্গত।  এছাড়া তিনি বলেন- বঙ্গবন্ধুর নাম যুক্ত করায় কি এই সংবাদ সম্মেলন?
উত্তরে আয়োজকরা জানান- এমন বক্তব্য  ধর্মীয় বিদ্বেষ ও ঘৃণাপূর্ণ স্লোগান বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক পরিস্থিতিকে উস্কে দিতে পারে তা দেশের বাইরেও ছড়িয়ে পড়তে পারে। আর বাঙ্গালী হিসেবে বঙ্গবন্ধুকে আমাদের সকলের শ্রদ্ধা করা উচিত। আমারা রাজনৈতিক কারনে সংবাদ সম্মেলন করিনি। আমাদের  ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত আনার কারনে আজকের এই আয়োজন। তখন এই জামাতি সংবাদিক বলেন- তিনি নাকি এমন স্লোগান আরো শুনেছেন।
উত্তরপূর্ব২৪ডটকম/এমসি/এমওআর

সর্বশেষ খবর


সর্বাধিক পঠিত